ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬২টি বিদ্যালয় বন্ধ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০২২, ০৯:৩৪ এএম

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পানিবন্দি পরিবারের সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পানিবন্দি পরিবারের সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে

পাহাড়ি ঢল ও অতিবৃষ্টির পানিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পানিবন্দি পরিবারের সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে। গতকাল বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) দুপুর পর্যন্ত জেলার বিজয়নগর, নাসিরনগর, আখাউড়া ও সরাইল উপজেলায় পানিবন্দি পরিবারের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় সাড়ে ৬ হাজার।

কারও ঘরে হাঁটু পানি, কারও আবার উঠানজুড়ে কোমর পানি। গত পাঁচদিন ধরে বন্দিদশায় থাকা পরিবারগুলো চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। বিশেষ করে নিম্নআয়ের মানুষগুলোর দুর্ভোগের অন্ত নেই। তবে অধিকাংশ পানিবন্দি পরিবার নিজের বাড়িতে মূল্যবান জিনিসপত্র রেখে আশ্রয় কেন্দ্রে উঠতে চাইছেন না।

বৃহস্পতিবার সরেজমিন বিজয়নগর উপজেলার  পানিবন্দি এলাকাগুলো ঘুরে দেখা গেছে, কয়েকটি গ্রামের ভেতরের সড়ক পানিতে তলিয়ে গেছে। বাড়ির রান্নাঘর, টিউবওয়েল ও টয়লেটও তলিয়েছে পানিতে। যেসব ঘরের ভেতরে পানি ঢুকেছে, সেসব পরিবারগুলোর চরম দুর্ভোগে আছেন।


অনেকেই ধার দেনা করে চলছেন। কোনো কোনো পরিবার শুধু এক বেলা ভাত খেয়ে বাকি দুই বেলা খাচ্ছেন চিড়া মুড়ি। অনেকে মাচার ওপর রান্না করছেন। ঢলের পানি কবে সরবে- সেই দুশ্চিন্তাতেই সময় পার করছে পরিবারগুলো।

এদিকে পানি উঠে পড়ায় নাসিরনগরে ৪৮টি, বিজয়নগরে ১টি এবং সরাইলে ১৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। পানিবন্দি পরিবারগুলোকে নগদ অর্থ ও ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হচ্ছে বলে জেলা প্রশাসন থেকে সাংবাদিকদের জানানো হয়েছে।

প্রধান সম্পাদক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ | প্রকাশক: নাহিদা আকতার জাহেদী

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh