ভিয়েতনামের হ্যানয়ে আগুনে নিহত ৫৬, আহত ৩৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০২:৫৮ পিএম

ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে একটি অ্যাপার্টমেন্ট ব্লকে বিশাল অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ৫৬ জন মারা গেছেন। এসময় কয়েক ডজন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। পুলিশ জানিয়েছে ভয়াবহ এ অগ্নিকাণ্ডে প্রায় ৩৭ জন আহত হয়েছেন। অন্যদিকে ৩৯ জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। জানা যায়, রাতে আগুনের সূত্রপাত হয়েছিল তা এরইমধ্যে নিভিয়ে ফেলা হয়েছে। পরে ভবনের মালিককে আটক করে নিয়ে যায় পুলিশ। 

হ্যানয়ের কর্তৃপক্ষ বলছে, দ্রুত বর্ধনশীল এই নগরীতে নতুন নির্মিত অনেক অ্যাপার্টমেন্টেই অগ্নি নিরাপত্তা বিধি মানা হয়নি। 

গত ২০ বছরে শহরটির জনসংখ্যা চারগুণ বেড়ে ৫ দশমিক ২৫ মিলিয়নে উন্নীত হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে ভবনের পার্কিং ফ্লোরে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে, যেখানে সারিবদ্ধভাবে মোটরবাইক রাখা ছিল।

এদিকে আগুনের কারণ অনুসন্ধানের বিষয়ে প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, আগুনের মূল সূত্রপাত ভবনের পার্কিং ফ্লোরে শুরু হয়েছিল। 

বাসিন্দারা স্থানীয় সময় মঙ্গলবার স্থানীয় সময় রাত ১১ টায় একটি বিকট বিস্ফোরণ শুনতে পান এবং তারপরেই বিল্ডিং দিয়ে কালো ধোঁয়া ওঠতে দেখেন তারা।

আগুনের ভয়াবহতা থেকে বেঁচে যাওয়া একটি পরিবার জানায়, তাদের জানালায় আটকে থাকা ধাতব রেলিং ভেঙে পাশের একটি ভবনে একটি সিঁড়ি লাগিয়ে তারা পালাতে পেরেছিলেন। 

হোয়া নামের একজন মহিলা এএফপি বার্তা সংস্থাকে বলেন, "আমি সাহায্যের জন্য অনেক চিৎকার শুনেছি। আমরা তাদের খুব বেশি সাহায্য করতে পারিনি,"

আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ১৫ টি ইউনিট কাজ করে। কিন্তু এর তীব্রতা এত বেশি ছিল যে  ফায়ার কর্মিরা জ্বলন্ত অ্যাপার্টমেন্টগুলোর কাছাকাছি যেতে পারেনি। এমনকি প্রবেশের গলিপথটি ছিল খুব সংকীর্ণ।

এসময় নিহতদের পরিবারের অনেককেই শহরের পশ্চিমে অবস্থিত একটি মর্গের বাইরে অপেক্ষারত দেখা যায়। সেখানে তাদের প্রিয়জনের লাশ আসছে কিনা সেটির অপেক্ষায় হাহাকার নিয়ে শত শত লোক অপেক্ষায় থাকেন। 

এমন এক ব্যক্তি এএফপিকে বলেন, "আমি আমার মেয়েকে হারিয়েছি, যে তার মায়ের সাথে ছিল।" 

 তবে এসময় তার স্ত্রী কোথায় ছিলেন তা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি।

পুলিশ ভবনের মালিক এনঘেইম কোয়াং মিনকে আটক করেছে। অগ্নি-প্রতিরোধ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়েছে তাকে বলে জানায় পুলিশ। 

এদিকে সরকারের পক্ষ হতে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আগুনের কারণ অনুসন্ধানে তদন্ত শুরু হয়েছে।

উল্লেখ্য, এক বছর আগে দক্ষিণ ভিয়েতনামের একটি কারাওকে ক্লাবে আগুনে ৩৩ জন মারা গিয়েছিলেন। 

সূত্র: বিবিসি 

সম্পাদক ও প্রকাশক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh