ইউক্রেন যুদ্ধে আরও ১০০ মিলিয়ন ডলার সামরিক সহায়তা যুক্তরাষ্ট্রের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ: ২১ নভেম্বর ২০২৩, ১১:৩৪ এএম

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী অস্টিন লয়েড ও ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। ছবি: এপি

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী অস্টিন লয়েড ও ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। ছবি: এপি

গত সোমবার ইউক্রেনে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী অস্টিন লয়েড এক ঝটিকা ও আকস্মিক সফরে গিয়ে রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ওয়াশিংটনের অব্যাহত সহায়তার বিষয়ে আশ্বস্ত করেছেন। এ সময় তিনি ইউক্রেনকে আরও ১০০ মিলিয়ন ডলারের সামরিক সহায়তার একটি প্যাকেজের কথাও জানান প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কিকে। 

এর আগে অস্টিন ২০২২ সালের এপ্রিলে প্রথম কিয়েভ সফরে যান। সেসময় তিনি প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রুস্তেম উমেরভ ও সামরিক বাহিনী প্রধান ভ্যালেরির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন। 

এদিকে সোমবারের সাক্ষাতের বিষয়ে জেলেনস্কিকে অস্টিন জানান, যুক্তরাষ্ট্র সবসময় আপনাদের পাশে রয়েছে। আমরা দীর্ঘকালীন সময় নিয়েই আপনাদের পাশে থাকব। 

তিনি বলেন, আশা করি বিশ্বব্যাপী রুশ আগ্রাসনকে ইউক্রেন পরাজিত করবে। এদিকে নতুন এই সামরিক প্যাকেজের আওতায় ট্যাংক বিধ্বংসী অস্ত্র, এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম ও হিমার্স রয়েছে। 

এ সময় জেলেনস্কি এমন সহায়তাকে ইউক্রেনের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বার্তা হিসেবে অভিহিত করেন। 

তিনি বলেন, আমরা আপনাদের সমর্থনের প্রতিটি দিনক্ষণ গুণে রাখছি। 

যুদ্ধ শুরুর পর থেকেই ইউক্রেনকে শত শত কোটি ডলারের সামরিক সহায়তা দিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। একই সঙ্গে ‘যত দিন প্রয়োজন’ এই সহযোগিতা দিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করে আসছে দেশটি। তবে রিপাবলিকান পার্টির কট্টরপন্থী আইনপ্রণেতাদের বিরোধিতার মুখে যুক্তরাষ্ট্রের ভবিষ্যৎ সহায়তা নিয়ে অবশ্য সংশয়ের সৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে এক বিবৃতিতে পেন্টাগন বলেছে, ইউক্রেনের নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে এবং দেশটির মুক্তির লড়াইয়ে যুক্তরাষ্ট্রের দৃঢ় সমর্থনের বিষয়টি পুনর্ব্যক্ত করতে কিয়েভ সফর করছেন অস্টিন। নিরাপত্তার কারণে সফরের বিষয়টি আগে থেকে ঘোষণা দেওয়া হয়নি। 

উল্লেখ্য, গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে রুশ হামলার পর থেকে এ নিয়ে দ্বিতীয়বার কিয়েভ সফরে গেলেন মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

পেন্টাগনের বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘রুশ আগ্রাসন থেকে আত্মরক্ষায় ইউক্রেনকে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা সহায়তা প্রদানের যুক্তরাষ্ট্রের অব্যাহত প্রতিশ্রুতির বিষয়টি প্রতিরক্ষামন্ত্রী গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরছেন এ সফরে।’ 

তবে কয়েকজন রিপাবলিকান আইনপ্রণেতা ইউক্রেনের প্রতি সহায়তা অব্যাহত রাখার বিরোধিতা করছেন। এর আগে মার্কিন সরকারের শাটডাউন এড়াতে গত সপ্তাহে কংগ্রেসে পাস হওয়া সাময়িক বিলে ইউক্রেনকে নতুন করে সহায়তা দেওয়ার বিষয়টি বাদ পড়ে যায়। তবে একজন সিনিয়র মার্কিন কর্মকর্তা সাংবাদিকদের বলেন, ‘কংগ্রেস সহায়তা দিয়ে যাবে বলে আমাদের বিশ্বাস। সেই প্রত্যয়ের ভিত্তিতে আমরা পরিকল্পনা করছি।’

এদিকে ইউক্রেনের সামরিক চিকিৎসাব্যবস্থায় বড় ধরনের পরিবর্তন করেছেন প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। তিনি সামরিক বাহিনীর চিকিৎসা শাখার কমান্ডার মেজর জেনারেল তেতিয়ানা ওস্তাশেঙ্কোকে পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছেন। প্রতিরক্ষামন্ত্রী রুস্তেম উমেরভের সঙ্গে বৈঠকের পর গত রোববার এ ঘোষণা দেওয়া হয়। 

এ পর্যন্ত যুদ্ধ শুরুর পর থেকে ইউক্রেনকে ৪৪ বিলিয়ন ডলার সামরিক সহায়তা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এছাড়াও ৩৫ বিলিয়ন ডলার এসেছে মার্কিন মিত্র জোটভূক্ত দেশগুলো হতে। 

সূত্র : আল জাজিরা, রয়টার্স  

সম্পাদক ও প্রকাশক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh