গাজা-ইসরায়েল যুদ্ধ

ইন্দোনেশিয়ান হাসপাতাল থেকে ২০০ রোগী নাসেরে স্থানান্তর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ: ২১ নভেম্বর ২০২৩, ১২:১৪ পিএম

 গাজা উপত্যকার ইন্দোনেশিয়ান হাসপাতালের মেঝেতে আহত রোগীরা। ছবি: রয়টার্স

গাজা উপত্যকার ইন্দোনেশিয়ান হাসপাতালের মেঝেতে আহত রোগীরা। ছবি: রয়টার্স

গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সোমবার (২০ নভেম্বর) জানিয়েছে, আন্তর্জাতিক সাহায্য সংস্থা রেড ক্রসের সহায়তায় গাজা উপত্যকার ইন্দোনেশিয়ান হাসপাতাল (রুমাহ সাকিত ইন্দোনেশিয়া) থেকে ২০০ রোগীকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এ প্রসঙ্গে গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আশরাফ আল-কুদরা এএফপিকে বলেন, ইতোমধ্যে ২০০ রোগীকে হাসপাতাল থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তাদেরকে বাসে করে দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর খান ইউনিসের নাসের হাসপাতালে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

আশরাফ আল-কুদরা জানান, ইন্দোনেশিয়ান হাসপাতালটি ইসরায়েলি সেনাবাহিনী অবরোধ করে রেখেছে। এ সময় খান ইউনিসে এএফপির এক সাংবাদিক দুটি বাসকে নাসের হাসপাতালে আসতে দেখেছেন বলে জানিয়েছেন। এর আগে গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে জানান যায়, ফিলিস্তিন ভূখণ্ডটির উত্তরাঞ্চলে অবস্থিত ইন্দোনেশিয়ান হাসপাতাল প্রাঙ্গণে ইসরায়েলের বোমা হামলায় ১২ জন নিহত হয়েছেন। এসব নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে চিকিৎসক ও রোগীও রয়েছেন।

উল্লেখ্য, গাজার উত্তরাঞ্চলে সবচেয়ে বড় হাসপাতালগুলোর একটি ইন্দোনেশিয়ান হাসপাতাল। 

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, গত রোববার (১৯ নভেম্বর) কোনো ধরনের পূর্বসতর্কতা চাহাড়াই ইসরায়েলি বাহিনী ট্যাংক নিয়ে হাসপাতালটি ঘিরে ফেলে এবং হামলা শুরু করে। এদিকে এখনও ইসরায়েলি ট্যাংক হাসপাতালের চারপাশ ঘিরে রেখেছে।

গাজা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, গত সপ্তাহে ইসরায়েলি বাহিনী আল-শিফা হাসপাতালে যা ঘটিয়েছে সেটির পুনরাবৃত্তি ঘটাতে চাইছে তারা ইন্দোনেশিয়ান হাসপাতালে। এমনকি তারা ইন্দোনেশিয়ান হাসপাতালটি দখল করে নিতে পারে।

এর আগে গত সপ্তাহে আল-শিফায় হামাসের গোপন সুড়ঙ্গ রয়েছে দাবি করে হাসপাতালে তল্লাশি চালায় ইসরায়েলি বাহিনী।  এ সময় ইসরায়েলি সেনাবাহিনী জানায়, হাসপাতালের ভূগর্ভে হামাসের ঘাঁটি আছে বলে তাদের হাতে প্রমাণ রয়েছে। অন্যদিকে আল–শিফা হাসপাতালের কর্মীরা বলছেন, ইসরায়েল এমন কিছু প্রমাণ করতে পারেনি।

গত ৭ অক্টোবর যুদ্ধ শুরুর পর থেকে ইসরায়েলের ভাষ্যমতে, হামাসের হামলায় প্রায় ১ হাজার ২০০ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া দুই শতাধিক ইসরায়েলিকে গাজায় জিম্মি করে নিয়ে যায় হামাস। আর এর পর থেকেই অবরুদ্ধ গাজায় অবিরাম বোমা হামলা ও স্থল অভিযান চালিয়ে আসছে ইসরায়েল।

এদিকে হামাসের হাতে জিম্মিদের পরিবারের লোকজন প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে দেখা করতে চাইলে সবাইকে দেখা করার অনুমতি দেয়নি প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা বাহিনী। এ সময় লোকেরা বেনইয়ামিন নেয়ানিয়াহুর সাথে দেখা করতে ভেতরে জায়গার সংকুলান হবে না বলে টাইমস অব ইসরায়েলকে জানায়। এর আগে ১০৭ জনের একটি তালিকা প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়েছিল। পরে যারা অনুমতি পায়নি তারা তেলআবিবের কিরইয়া মিলিটারি ক্যাম্পের বাইরে বিক্ষোভ শুর করেন। 

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান 

সম্পাদক ও প্রকাশক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh