ডিসেম্বরের শেষে আসছে শৈত্যপ্রবাহ

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ: ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৩:৫০ পিএম

ঘন কুয়াশায় সড়কে যানবাহনের চলাচল। ফাইল ছবি

ঘন কুয়াশায় সড়কে যানবাহনের চলাচল। ফাইল ছবি

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হওয়া ঘূর্ণিঝড় ‘মিগজাউম’–এর প্রভাবে আজ মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) সকাল থেকেই রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে আকাশ মেঘলা। রাজধানীর কোনো কোনো স্থানে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হয়েছে। দেশের অন্যত্রও বৃষ্টি হচ্ছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, আগামীকাল বুধবার (৬ ডিসেম্বর) বৃষ্টির পরিমাণ বাড়তে পারে। তবে অপেক্ষাকৃত বেশি বৃষ্টি হতে পারে দেশের দক্ষিণাঞ্চলে। রাজধানীতেও কিছুটা বৃষ্টি হতে পারে। আর এই বৃষ্টির পরই তাপমাত্রা দুই থেকে তিন ডিগ্রি সেলসিয়াস কমতে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া অধিদপ্তর।

এদিকে, চলতি মাসের শেষের দিকে দেশে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ দেখা দিতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। দীর্ঘমেয়াদী পূর্বাভাস প্রতিবেদনে জানানো হয়, ডিসেম্বর মাসে সামগ্রিকভাবে দেশে স্বাভাবিক অপেক্ষা সামান্য বেশি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে। এ মাসে দিন ও রাতের তাপমাত্রা ক্রমান্বয়ে কমতে পারে জানিয়ে পূর্বাভাস প্রতিবেদনে বলা হয়, ডিসেম্বরে দিন ও রাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে কিছুটা বেশি থাকতে পারে।

এ মাসের শেষার্ধে দেশের কোথাও কোথাও এক থেকে দুটি মৃদু (৮-১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস) বা মাঝারি (৬-৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস) শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

আজ মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) আবহাওয়া অধিদপ্তরের ১৯ নম্বর বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড়টি আরও উত্তর থেকে উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড়টি আজ সকাল ৬টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৫৩০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল। চট্টগ্রাম, মোংলা, পায়রা সমুদ্রবন্দর ও কক্সবাজারকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

মিগজাউমের ফলে আসা বৃষ্টির পর দেশের বিভিন্ন স্থানে শীত নামবে বলেই ধারণা আবহাওয়াবিদদের। বজলুর রশীদ বলেন, ‘এই মেঘলা আকাশ ও বৃষ্টি চলে যাওয়ার পরই তাপমাত্রা দুই থেকে তিন ডিগ্রি সেলসিয়াস কমতে পারে। তাতে শীত অনুভূত হবে অপেক্ষাকৃত বেশি।’

সম্পাদক ও প্রকাশক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh