শৈলকুপায় চাচাকে কুপিয়ে হত্যা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৭:০৬ পিএম

শৈলকুপা থানা। ফাইল ছবি

শৈলকুপা থানা। ফাইল ছবি

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় চাচা লাল্টু মোল্লাকে (৩৬) কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তারই দুই ভাতিজা আসাদ ও মিরাজের বিরুদ্ধে। আজ বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে উপজেলার কাকুড়াডাঙ্গা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত লাল্টু মোল্লা ১২নং নিত্যানন্দনপুর ইউনিয়নের কাকুড়াডাঙ্গা গ্রামের গ্যানো মোল্লার ছেলে। আসাদ ও মিরাজ একই গ্রামের লকাই মোল্লার ছেলে। লকাই ও লাল্টু আপন চাচাতো ভাই।

এলাকাবাসী জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে কাকুড়াডাঙ্গা গ্রামের মাঠ থেকে বাড়ি ফিরছিলেন লাল্টু। পথে তার ভাতিজা আসাদ ও মিরাজ তাকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেন। সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এলাকাবাসী আরও জানান, লাল্টু গত বছর পরকীয়া প্রেমের জেরে বড় ভাবিকে পালিয়ে বিয়ে করেন। এ নিয়ে পরিবারের মাঝে বিরোধ শুরু হয়। বিরোধের জেরে লাল্টু দীর্ঘদিন আত্মগোপনে ছিলেন। কিছুদিন আগে তিনি বাড়িতে ফিরে আসেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে আসাদ ও মিরাজ তার চাচা লাল্টুকে পার্শ্ববর্তী কাকুড়াডাঙ্গা বিলের মাঠে কুপিয়ে হত্যা করেন।

১২ নং নিত্যনন্দনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মফিজ উদ্দিন জানান, লাল্টু লকাইয়ের আপন চাচাতো ভাই। লকাই ইটালী প্রবাসী। তার দুই ছেলে। লাল্টু লকাইয়ের স্ত্রীর সাথে পরকীয়া করে বিয়ে করেন। পরে পারিবারিক চাপে তাদের ডিভোর্স হয়। লকাই তার স্ত্রীকে মেনে নিয়ে আবারো বিয়ের জন্য সম্মতি দেন। কিন্তু লকাইয়ের দুই ছেলে বিষয়টি মেনে নিতে পারেননি। এ কারণে দুই ভাই মিলে লাল্টুকে হত্যা করেছেন।

শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. সফিকুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, পরকীয়া প্রেমের কারণেই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

সম্পাদক ও প্রকাশক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh