বন্য হাতির ভয়ে চোরাই গরু রেখে পালাল চোরাকারবারিরা

শেরপুর প্রতিনিধি

প্রকাশ: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৭:০২ পিএম

ভারত থেকে চোরাই পথে আসা গুরু। ছবি: শেরপুর প্রতিনিধি

ভারত থেকে চোরাই পথে আসা গুরু। ছবি: শেরপুর প্রতিনিধি

বন্য হাতির ভয়ে ভারত থেকে চোরাই পথে নিয়ে আসা ৪টি মহিষ ও ৩টি গরু রেখে পালিয়েছে সংঘবদ্ধ চোরাকারবারিরা। পরবর্তীতে ওই গরু ও মহিষ স্থানীয়দের দেওয়া তথ্যে সীমান্ত সড়কের পাশে পুকুর পাড়ে বেঁধে রাখা অবস্থায় জব্দ করেছে থানা পুলিশ।

আজ মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) সকালে শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার ডালুকোনা পাহাড়ি এলাকায় এসব গরু-মহিষ পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া গেলে দুপুরে তা জব্দ করা হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সম্প্রতি একটি সংঘবদ্ধ চোরাকারবারি চক্র রাতের আধারে চোরাই পথে ভারত থেকে ভারতীয় গরু-মহিষ নিয়ে আসছিল। পরে আর্থিক সুবিধা দিয়ে বিভিন্ন ইজারাদারের কাছ থেকে গরু ক্রয়ের রশিদ সংগ্রহ করে বাংলাদেশি গরু বলে প্রকাশ্যে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করে আসছিল।

এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার ভোররাতে উপজেলার নয়াবিল ইউনিয়নের ডালুকোনা পাহাড়ি এলাকা দিয়ে ৪টি মহিষ ও ৩টি গরু চোরাই পথে বাংলাদেশের সীমান্তে আনে চোরাকারবারিরা। এসময় বাংলাদেশের আভ্যন্তরে ওই এলাকায় বন্য হাতির বিচরণ থাকায় হাতির ভয়ে গরু-মহিষ নিয়ে সকাল পর্যন্ত পাহাড়ের গহীনে অবস্থান করে তারা। বন্য হাতি ওই এলাকা ছেড়ে যাওয়ার পর সকাল নয়টার দিকে গরু-মহিষগুলো ডালুকোনা সীমান্ত সড়কের কাছেই পুকুরপাড়ের গাছে বেঁধে রাখে সংঘবদ্ধ চক্রটি।

এরপর ভটভটি নিয়ে সেগুলো পাচারের উদ্দেশ্যে আনতে গেলে স্থানীয়রা দেখে ফেলেন এবং মোবাইলে ছবি তোলার চেষ্টা করেন। এতে ভয়ে গরু-মহিষ রেখেই পালিয়ে যায় চোরাকারবারিরা।

পরে খবর পেয়ে দুপুরে নালিতাবাড়ী থানা পুলিশের সেকেন্ড অফিসার এসআই সায়েদুর রহমান ওইসব গরু-মহিষ জব্দ করতে গেলে বারমারী বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা এগুলো নিজেদের আওতায় জব্দ করার চেষ্টা করে। কিন্তু আইনি জটিলতায় শেষ পর্যন্ত বিজিবি তা জব্দ করতে ব্যর্থ হয়। এমতাবস্থায় থানা পুলিশ ৪টি মহিষ ও ৩টি গরু জব্দ করে থানায় নিয়ে আসে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মনিরুল আলম ভুঁইয়া জানান, পরিত্যক্ত অবস্থায় ৪টি মহিষ ও ৩টি গরু জব্দ করা হয়েছে। তবে এর কোন মালিক পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

সম্পাদক ও প্রকাশক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh