রাজধানীতে ৬৫০ কোটি টাকার সরকারি সম্পত্তি উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ: ০৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:৫২ পিএম | আপডেট: ০৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:৫৭ পিএম

অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ। ছবি- সংগৃহীত

অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ। ছবি- সংগৃহীত

রাজধানীর মিরপুরের বুড়িরটেক এলাকায় ৬৫০ কোটি টাকা মূল্যের সরকারি সম্পত্তি উদ্ধার করা হয়েছে। ঢাকার জেলা প্রশাসক আনিসুর রহমানের নির্দেশনায় আজ মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) এসব সম্পত্তি উদ্ধার করা হয়। 

দীর্ঘদিন ধরে সরকারের এই সম্পত্তি আলীনগর হাউজিং, হ্যাভেলি প্রোপার্টিজ, খাতুন প্রোপার্টিজের নামে অবৈধভাবে কেনা-বেচা করছিল একটি চক্র।

সকাল ৯টায় এই উচ্ছেদ কার্যক্রম অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. শিবলী সাদিকের সার্বিক তত্ত্বাবধানে শুরু হয়। উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সিনিয়র সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট অমিত কুমার সাহা এবং মিরপুর রাজস্ব সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট অর্ণব মালাকার।

এ সময় ঢাকা মহানগরীর সব সহকারী কমিশনার (ভূমি) উপস্থিত ছিলেন। উচ্ছেদ কার্যক্রমের সময় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের বিপুল সংখ্যক ফোর্স নিয়োজিত ছিল। 

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, রাজধানীর মিরপুরে অবস্থিত এই সম্পত্তি জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষের অনুকূলে অধিগ্রহণ করা হয়। জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষ দীর্ঘদিন ধরে এ সম্পত্তি অব্যবহৃত রাখায় ২০০৯ সালে তৎকালীন ঢাকা জেলা প্রশাসক এ সম্পত্তি পুণঃগ্রহণ করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৫ সালে পুণঃগ্রহণের গেজেট প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত গেজেট বিজ্ঞপ্তি মতে সাবেক মিরপুর (বর্তমান পল্লবী) থানাধীন বাউনিয়া মৌজার বিভিন্ন দাগে পুণঃগ্রহণকৃত জমির পরিমাণ ১০.১৮ একর। গেজেট বিজ্ঞপ্তি মোতাবেক পুণঃগ্রহণকৃত এ ভূমি খাস খতিয়ানে অন্তর্ভুক্ত করে রেকর্ড সংশোধন করা হয়েছে, যার মধ্যে প্রায় ৬ একর ভূমি থেকে আজ সব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত এ ভূমিতে সরকারি সাইনবোর্ড স্থাপন করা হয়েছে এবং কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে সীমানা নির্ধারণ করা হয়েছে। অবশিষ্ট ভূমিতেও পর্যায়ক্রমে উচ্ছেদ কার্যক্রম চলমান থাকবে।  

জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আনিসুর রহমান বলেন, জনকল্যাণে এ ভূমি ব্যবহার করা হবে এবং সরকারি সম্পত্তি রক্ষায় ঢাকা জেলা প্রশাসনের কার্যক্রম চলমান থাকবে।

সম্পাদক ও প্রকাশক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh