কাউচসার্ফিং: ভ্রমণপ্রিয়দের উন্মুক্ত প্ল্যাটফর্ম

লুফাইয়্যা শাম্মী

প্রকাশ: ০২ মে ২০২৪, ০৪:৫১ পিএম

অপরিচিত কোনো জায়গায় অজানা মানুষের ভিড়ে হঠাৎ কোনো বন্ধু খুঁজে পাওয়া দারুণ এক ব্যাপার। ছবি: লুফাইয়্যা শাম্মী

অপরিচিত কোনো জায়গায় অজানা মানুষের ভিড়ে হঠাৎ কোনো বন্ধু খুঁজে পাওয়া দারুণ এক ব্যাপার। ছবি: লুফাইয়্যা শাম্মী

সারা পৃথিবীতে অসংখ্য ভ্রমণপ্রেমী রয়েছে, যারা বছরব্যাপী সারা পৃথিবীতে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। আবার অনেকের সময় থাকা সত্ত্বেও অর্থনৈতিক কারণে ভ্রমণে যেতে পারেন না। ভ্রমণপ্রেমীদের ভ্রমণকে আরও সহজ করতে পৃথিবীজুড়ে তাদের সব বন্ধুবান্ধবের আড্ডাস্থলের মতো একটি অ্যাপ্লিকেশন আছে; যার নাম কাউচসার্ফিং।

আপনি যে জায়গায় যেতে চান, সেখানে যদি কাউচসার্ফিংয়ের কোনো সদস্য থাকেন, আপনি তার কাছে সাহায্য চাইতে পারবেন ভ্রমণের ক্ষেত্রে। বাজেট ট্রাভেলারদের প্রথম পছন্দ হতে পারে এই কাউচসার্ফিং। এর মাধ্যমে আপনি কোনো জায়গায় গিয়ে হোস্টের সঙ্গে থাকতে পারবেন, আবার আপনার এলাকায় ঘুরতে আসা কোনো দেশি বিদেশি সার্ফারকে হোস্ট করতে পারবেন। আপনার যদি একটি বন্ধুকে ঘুমাতে দেওয়ার মতো জায়গা থাকে, তাহলেই আপনি হোস্ট হতে পারবেন। হোস্ট হওয়ার ক্ষেত্রে সবচেয়ে জরুরি আপনার বাসায় যে গেস্ট আসছে তাকে আপনার বাসা এবং তার থাকার জায়গা সম্পর্কে বিস্তারিত উপস্থাপন করা। এ ক্ষেত্রে তিনি জানতে পারবেন, তার ঘুমানোর জায়গাটি কেমন হবে। যিনি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করবেন আপনার বাসায় আসবেন, নইলে আসা থেকে বিরত থাকবেন। 

এতে করে অনাকাঙ্ক্ষিত অনেক পরিস্থিতি এড়ানো যায়। একইভাবে আপনি যখন কোনো হোস্টের কাছে যাবেন, পূর্বেই হোস্টের বিস্তারিত জেনে নেয়া জরুরি। হোস্টের প্রোফাইল ও রেফারেন্সগুলো পড়ে নিতে হবে, তারপরও কোনো কিছু সম্পর্কে দ্বিধা থাকলে অবশ্যই জিজ্ঞেস করে নিতে হবে। রেফারেন্স হলো ওই ব্যক্তির কাছে যারা ছিলেন কিংবা দেখা করেছেন কিংবা একসঙ্গে ঘুরেছেন, সে অভিজ্ঞতার বর্ণনা। 

অপরিচিত কোনো জায়গায় অজানা মানুষের ভিড়ে হঠাৎ কোনো বন্ধু খুঁজে পাওয়া দারুণ এক ব্যাপার। আর সেটা যদি হয় দেশের বাইরে তাহলে তো কথাই নেই। বিশ্বজুড়ে আমাদের প্রচুর বন্ধু আছেন যাদের আমরা কখনো দেখিনি, এমনকি তার সম্পর্কে জানিও না। একজন কাউচসার্ফিং সদস্য, আপনার সেই অজানা বন্ধুটি। যার সঙ্গে আপনি আপনার নিজ গুণে একটি সুন্দর সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি করে ফেলতে পারেন। যা আপনার ভ্রমণকে আনন্দদায়ক করার গুরুত্বপূর্ণ একটি ধাপ হতে পারে। সে আপনাকে তার এলাকার সকল অজানা তথ্য, সেখানকার সংস্কৃতি, ভাষা, শিল্প, মানুষের জীবন এত কাছ থেকে দেখাবে, যা সাধারণত আপনি কোনো ফিচার, বই, ব্লগেও পাবেন না। বন্ধুটি লোকাল গাইড হিসেবে সব কিছুরই সহযোগী হয়ে ওঠে।

কাউচসার্ফিংয়ের মাধ্যমে থাকার সময় কখনো কখনো আপনি হয়তো লাক্সারি ব্যবস্থাপনায় থাকবেন, অনেক হোস্ট সার্ফারের জন্য প্রাইভেট রুম দিয়ে থাকে। অনেকেই এয়ারবিএনবিতে ব্যবহৃত রুমটি সার্ফারকে দেন, আবার অনেক হোস্ট যাদের গাড়ি আছে, পিক এন ড্রপের ব্যবস্থা করেন। আবার কখনো হয়তো কেবল একটি ম্যাট্রেস পাবেন ঘুমানোর জন্য। কিন্তু সব সময় সব জায়গায় কিছু স্থানীয় বন্ধু পাবেন, যিনি আপনার ভ্রমণে পূর্ণতা দেবে। 

২০২৩ সালে কয়েক মাস আমি ভারতে ভ্রমণ করেছি। সে সময় এমন সব জায়গায় গিয়েছিলাম এমন সব মানুষের সঙ্গে মিশেছিলাম যা আমার জন্য এক চমৎকার অভিজ্ঞতা ছিল। ভারতের প্রত্যন্ত গ্রাম-শহরে গিয়ে স্থানীয়দের ঘরে তাদের বন্ধু হয়ে থেকেছি দিনের পর দিন, তাদের অনেকেই আমাকে স্থানীয় উৎসবে নিয়ে গেছেন এবং স্থানীয় সবকিছুর সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন। আমার কাছে দেশের বন্ধুদের জিজ্ঞাসা ছিল আমি কীভাবে ভারতে স্থানীয়দের কাছে পৌঁছালাম, ঘুরলাম।

২০২২ সালে চিকিৎসার জন্য যখন দক্ষিণ ভারতের ভেলোরে ছিলাম, আমার খুব ইচ্ছে হয়েছিল সমুদ্র তীরবর্তী কিছু জায়গা ঘুরে দেখার। কিন্তু সে সময় আমার কাছে পর্যাপ্ত টাকা না থাকায় বিকল্প কোনো কিছুর সন্ধান করছিলাম। সে সময় আমি কাউচসার্ফিং সম্পর্কে জানতে পারি এবং আমার আগ্রহ জন্মায় এ সম্পর্কে। অ্যাকাউন্ট তৈরি করার পর কাউচসার্ফিং সম্পর্কে আরও জানতে আমার আশেপাশের সার্ফারদের দেখা করার আমন্ত্রণ জানাই। ভেলোরে একজন সার্ফার ছিলেন, যিনি আমার সঙ্গে দেখা করতে আগ্রহী হন। সেভাবেই প্রথমবার একজন অপরিচিত স্থানীয় লোক আমার বন্ধু হয়ে যায়। যিনি আমাকে দক্ষিণ ভারতের নানান দিক সম্পর্কে জানান। 

বাংলাদেশ কাউচসার্ফিং কমিউনিটিতে সারা দেশে শখানেক অ্যাকটিভ হোস্ট আছেন, যাদের বেশিরভাগই রাজধানী ঢাকায়। বাংলাদেশে এখনো কাউচসার্ফিং সম্পর্কে লোকে তেমন জানে না। অনেকে শুধু ফ্রি থাকার জন্য এটি ব্যবহার করেন, কিন্তু হোস্টিংয়ে আগ্রহী নন। আবার অনেকে কেবল শ্বেতাঙ্গদের হোস্ট করতে আগ্রহী। কিন্তু কাউচসার্ফিং ধর্ম কিংবা বর্ণের ঊর্ধ্বে। 

আমি আমার জীবনের প্রথম সার্ফারকে হোস্ট করেছিলাম এক হোস্টের বাসায়, ভারতের ওটিতে। ওই সময় কাজাখস্তান থেকে একজন সার্ফার হোস্ট পাচ্ছিলেন না। আমার হোস্টের কাছেও তিনি রিকোয়েস্ট পাঠিয়েছিলেন, কিন্তু তিনি ক্যান্সেল করেছিলেন। এরপর হোস্টের অনুমতি নিয়ে তাকে আমার সঙ্গে থাকার আমন্ত্রণ জানাই। এভাবেই আমার প্রথম হোস্টিং শুরু। 

কাউচসার্ফিং একটি চমৎকার অভিজ্ঞতা। এর মাধ্যমে আমি কোনো দেশে না গিয়েও সে দেশের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক বিষয়গুলো জানতে পারি। সার্ফারদের অনেকেই অনেক দেশ ভ্রমণ করেছেন, তাদের ঝুলিতে থাকে প্রচুর গল্প ও অভিজ্ঞতা। তারা শুধু নিজের দেশ নয়, পৃথিবীর  অন্যান্য অনেক বিষয়ে তথ্য দিতে পারেন। আমি সব সময় হোস্ট করতে ভালোবাসি, এতে ঢাকার বদ্ধ জীবনে কিছুটা ভ্রমণের স্বাদ পাই।

বাজেট ট্রাভেলার ও স্থানীয় সংস্কৃতি সম্পর্কে জানতে আগ্রহী মানুষের জন্য কাউচসার্ফিং একটি চমৎকার প্ল্যাটফর্ম। ভ্রমণকে সহজ, সুন্দর ও আনন্দদায়ক বানাতে তাই আপনিও ব্যবহার করতে পারেন এই সুন্দর প্ল্যাটফর্মটি। তবে কাউচসার্ফিংয়ের ক্ষেত্রে রেফারেন্স অনেক জরুরি। অনেক সময় ভালো রেফারেন্স থাকা সত্ত্বেও কিছু মন্দও থাকে, সে ক্ষেত্রে যারা অভিজ্ঞতা লিখছেন তাদের সত্যতাও যাচাই করা জরুরি। এটি ভ্রমণপিপাসুদের কাছে উন্মুক্ত প্ল্যাটফর্ম হলেও কিছু সুযোগ সন্ধানী ব্যবহারকারীও আছেন। কেউ কেউ না বুঝে প্রতারণার শিকার হন, তাই অবশ্যই এ অ্যাপের ব্যবহার বুঝেশুনে সচেতনভাবে করতে হয়। 

সম্পাদক ও প্রকাশক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh