ঢেউ খেলানো ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়ক যেন মৃত্যুফাঁদ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০৫ মে ২০২৪, ১০:০২ পিএম | আপডেট: ০৫ মে ২০২৪, ১০:০২ পিএম

ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়কটি দেখতে এখন একদম মেঠো সড়কে পরিণত হয়েছে। ছবি: ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়কটি দেখতে এখন একদম মেঠো সড়কে পরিণত হয়েছে। ছবি: ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

রাস্তায় এমন ঢেউ খেলা সচরাচর চোখে পড়বে না । হঠাৎ দেখলে সমুদ্রের ঢেউ বা তরঙ্গ চোখের সামনে ভেসে উঠবে । তবে এটি কিন্তু কোন আঞ্চলিক সড়ক না। ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়ক এটি । মহাসড়কের অন্রতম ব্যস্ততম বাজার বিষয়খালী এখন যেন মৃত্যুফাঁদ।

জানা যায়, বিষয়খালীর বটতলা নামক স্থান থেকে রাকিবের চায়ের দোকান পর্যন্ত ১০০০ থেকে ১২০০ ফুট রাস্তা পর থেকে জীবন হাতে করে পার হতে হয়। প্রতিদিনই ঘটছে ছোটখাটো দুর্ঘটনা। বিকল হচ্ছে রাস্তায় চলা যানবাহন যে কোন সময়। দুই গাড়ী পারপারের সময় কে কোন দিকে যাবে তাই বুঝে উঠতে পারছে না।

এলাকাবাসী ইব্রাহিম মোল্লা জানান, ঝিনাইদহ-যশোর সড়কটি দেখতে এখন একদম মেঠো সড়কে পরিণত হয়েছে। মেঠো সড়কে যেমন গরুর গাড়ী চলতে চলতে গ্রামের ভাষা অনুযায়ী ‘পয়ান’ হয়ে যায়। এখন ঠিক এই মহাসড়কটি পয়ানে পরিনত হয়েছে।

এই সড়কে এপ্রিল মাসে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় মৃত্যুর পথযাত্রী হয়ে বিছানায় কাতরাচ্ছেন ঝিনাইদহ সদর উপজেলার হরিপুর গ্রামের ব্যাংক কর্মকর্তা রুবেল হোসেন।

প্রত্যক্ষদর্শী চা ব্যবসায়ী রাকিব হোসেন জানান, প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ২০ থেকে ২৫ টি মোটরসাইকেল ছিটকে পড়ছে রাস্তায়। আর চা বানানো বাদ দিয়ে দৌড়ে গিয়ে তাদের জীবন বাঁচাতে টেনে তোলা লাগছে রাস্তা থেকে। এই দুই সপ্তাহে শত শত মোটরসাইকেল যাত্রী আহত হয়েছে। তবে বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকে বেঁচে গেছেন মোটরসাইকেল যাত্রীরা। তাই সড়ক বিভাগের কাছে দাবি দ্রুত সড়কটি মেরামত করে যান চলাচলের উপযোগী করা হোক। আর তা না হলে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে যে কোন সময়।

এ বিষয়ে ঝিনাইদহ সড়ক বিভাগের নির্বহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ আনোয়ার পারভেজ এর সাথে মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও ফোনে তাকে পাওয়া যায়নি।

সম্পাদক ও প্রকাশক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh