নেতানিয়াহুর বর্বরতা হিটলারকেও হার মানায়: এরোদোয়ান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশ: ১৩ মে ২০২৪, ০৮:৪৩ এএম

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেজেপ তাইয়িপ এরদোয়ান। ফাইল ছবি।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেজেপ তাইয়িপ এরদোয়ান। ফাইল ছবি।

গাজার রাফাহ শহরে ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর অভিযান শুরুর হামলার প্রতিবাদ জানিয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরোদোয়ান বলেছেন, তেল আবিবের কর্তা নেতানিয়াহু যেভাবে গাজা উপত্যকায় গণহত্যা চালাচ্ছেন, যে ধরনের নিষ্ঠুরতা দেখাচ্ছেন, তাতে হিটলারও লজ্জা পাবে। হিটলারও এই নিষ্ঠুরতার কাছে হার মানবে।

রবিবার (১২ মে) গ্রিসের ক্যাথিমেরিনি দৈনিকের সাথে একটি সাক্ষাৎকার এরোদোয়ান এমন মন্তব্য করেন। এর আগে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে কসাই বলে আখ্যায়িত করেছিলেন এরদোয়ান।

এছাড়া ইরানের হামলার জবাবে ইসরায়েলের পাল্টা হামলার প্রস্তুতি নেওয়ার সময়ও নেতানিয়াহু ও পশ্চিমাদের সমালোচনা করেন এরোদোয়ান। তিনি বলেছিলেন, আমেরিকার নেতৃত্বে পশ্চিমারা ইসরাইলে ইরানের হামলার নিন্দায় ব্যস্ত, অথচ সিরিয়ায় ইরানের দূতাবাসে হামলার ঘটনায় তারা চুপ ছিলো।

এদিকে সম্প্রতি গাজায় ‘ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয়’কে কারণ হিসেবে উল্লেখ করে ইসরাইলের সঙ্গে সব ধরনের বাণিজ্য স্থগিত করেছে তুরস্ক। দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বলেছে, ইসরাইল গাজায় ‘বাধাহীন ও যথেষ্ট পরিমাণ ত্রাণ প্রবাহ’ অনুমতি না দেয়া পর্যন্ত এ পদক্ষেপ বহাল থাকবে।

গাজা উপত্যকায়, ইসরাইলের অভিযানের মধ্যেই এরোদোয়ান ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন- হামাসের  প্রধান ইসমাইল হানিয়াকে আতিথ্য দিয়েছেন। ইস্তাম্বুলের ডলমাবাহচে প্রাসাদে দুই নেতা দেখাও করেছেন। এসব নিয়ে ইসরায়েল বা পশ্চিমাদের চোখ রাঙানিকে পাত্তাও দেননি তুরস্কের প্রেসিডেন্ট।

এরপরই গত ২৪ এপ্রিল আঙ্কারায় এক সংবাদ সম্মেলনে এরোদোয়ান বলেন, তুরস্ক এখন থেকে আর ঘাতক  ইসরায়েলের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ বাণিজ্য সম্পর্ক বজায় রাখবে না। সেই অধ্যায় পুরোপুরি শেষ হয়ে গেছে। এরপরই গেলো সপ্তাহে সব ধরণের বাণিজ্য স্থগিতের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয় তুরস্ক।

উল্লেখ্য, ১৯৪৯ সালে প্রথম মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ হিসেবে ইসরাইলকে স্বীকৃতি দিয়েছিলো তুরস্ক। তবে সাম্প্রতিক দশকগুলোতে দেশ দুটির মধ্যকার সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। ২০১০ সালে গাজায় তুর্কি জাহাজে ইসরাইলি কমান্ডোদের হামলায় দশ তুর্কি কর্মী নিহত হবার ঘটনায় তুরস্ক কূটনৈতিক সম্পর্কও ছিন্ন করে।

পরে, ২০১৬ সালে আবার দেশ দুটির মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক পুনস্থাপিত হয়। কিন্তু এর দুই বছরের মাথায় আবারও দুই দেশ কূটনৈতিক বিতণ্ডতায় জড়িয়ে পরে। গাজা সীমান্তে ইসরাইলি সেনাদের হাতে ফিলিস্তিনি নিহত হবার ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় দেশ একে অন্যের শীর্ষ কূটনীতিককে বহিষ্কার করে।

সেই থেকে আঙ্কারা-তেল আবিবের মধ্যে দা-কুমড়ো সম্পর্ক। গত সাত অক্টোবর ইসরাইলে হামাসের হামলার পর ইসরাইলের তীব্র সমালোচনা করে আসছেন এরোদোয়ান। তিনি বলেছিলেন, হামাসের হামলার জবাবে নেতানিয়াহু যে সামরিক অভিযান চালিয়েছেন তা ‘হিটলার যা করেছিলো তার চেয়ে কোন অংশে কম নয়’।

সম্পাদক ও প্রকাশক: ইলিয়াস উদ্দিন পলাশ

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

Design & Developed By Root Soft Bangladesh