সম্পর্কের আদব-কেতা

শৈশবে আমরা মুরব্বিদের কাছ থেকে প্রায়ই একটা কথা শুনে এসেছি, আর সেটা হলো ‘বাহ্, অমুকের ছেলে বা মেয়েটা বেশ ভালো, আচার ব্যবহারে সহবত আছে। অথবা ‘কী ছেলেমেয়েরে বাবা! মা-বাবা কি কোনো সহবত শেখায়নি?’

সহবত কী? সহবত হলো দেশ ও অঞ্চল ভেদে ভদ্র আচরণ ও ব্যবহার। এক এক দেশের সহবত ও লোকজ আচরণ এক একরকম। মানুষ সমাজবদ্ধ প্রাণী আর এই সমাজে চলার জন্য তাকে বিভিন্ন সম্পর্ক তৈরি করতে হয়। সেটা নিজ পরিবার থেকে শুরু করে কর্মক্ষেত্র ও প্রতিবেশীদের সঙ্গেও সুন্দর সম্পর্ক তৈরি করে চলাটা এক বিশেষ দক্ষতা। আর এই দক্ষতা তৈরির সূতিকাগার হলো পরিবার। তবে শুধু পারিবারিক শিক্ষা থাকলেই হবে না বরং নিজেকে সেই বিষয়গুলো চর্চার মাধ্যমে আপনি হয়ে উঠতে পারেন সত্যিকারের একজন আধুনিক ও স্মার্ট মানুষ। আর এ জন্য অনুসরণ করা যেতে পারে পাঁচটি মৌলিক বিষয়। এক গবেষণায় দেখা গেছে ব্যক্তিগত ও পেশাগত ক্ষেত্রে সফল মানুষরা এই সহবতগুলো মেনে চলেছেন।

কোনো বিষয়ে সুবিধা নেওয়া

এটা খুবই প্রাচীন ও সেকেলে একটি আচরণ। প্রায় সময়ই দেখি স্বল্প পরিচিত অথবা নতুন পরিচিত হয়েছে এমন ব্যক্তির কাছে আমরা হয়তো কিছু চেয়ে বসি বা কোনো সহযোগিতার জন্য তার দ্বারস্থ হই। এটা মোটেও ভালো বিষয় নয়। স্বল্প পরিচিত কারও কাছে হুট করে চাকরি চেয়ে বসা অথবা দুদিনের পরিচয়েই তার কাছে কোনো কিছু চেয়ে ফেলাটা ভালো সহবত নয়।

অপরকে ধন্যবাদ দেওয়ার অভ্যাস করুন

আপনার স্বামী বা স্ত্রী, সঙ্গী বা সঙ্গিনীকে যে কোনো বিষয়ের জন্য ধন্যবাদ জানান। ঠিক তেমনি আপনার কোনো কলিগ হয়তো তার কাজের বাইরেও আপনার কাজ করে দিচ্ছেন অথবা আপনার বন্ধু আপনার সঙ্গে কফি খাওয়ার জন্য অনেক ব্যস্ততার মাঝেও সময় বের করেছে তাদের ধন্যবাদ জানান।

অপরের কথাও ভাবুন

সম্পর্ক একতরফা হয় না, দুজনের প্রতিই দুজনে যত্ন, মমতা, মনোযোগে একটি সম্পর্ক ছোট গাছ থেকে মহীরুহ হয়। তাই শুধুই আপনার প্রয়োজনে নয় বরং তার প্রয়োজনেও আপনি পাশে থাকুন। ভালো বন্ধু আপনার সবরকম বিপদে পাশে ঢাল হয়ে দাঁড়ায়, তার পাশে আপনিও প্রয়োজনে ঢাল হয়ে দাঁড়ান। স্বামী-স্ত্রী দুজনই দুজনের প্রয়োজনের প্রতি খেয়াল রাখুন। ঠিক তেমনি নতুন পরিচিত কারও সঙ্গে পরিচিত হওয়া মাত্রই শুধু নিজের কথা না বলে তার কথাও শুনুন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে সংযত হোন

অনেকেই বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন পক্ষ বা বিপক্ষ অবলম্বন করে অহেতুক বাগ্বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। সঙ্গত কারণেই এগুলো এড়িয়ে চলা ভালো। চেষ্টা করুন ব্যক্তিগত বিষয় সামাজিক মাধ্যমে প্রচার না করতে। এ ধরনের বিষয় থেকে অনেক সময় দুর্ঘটনা যেমন ঘটে, তেমনি অপরপক্ষের কাছেও নিজে খেলো বা ফালতু হয়ে যেতে পারেন।

অহেতুক বিব্রত করবেন না

ডিভোর্স হয়েছে বা কেউ একা থাকছেন- তাকে শুধু শুধুই অতীত জীবনের কথা তুলে বিব্রত করা অথবা কেন সে একা, বিয়ে করছে না এ  ধরনের বিব্রতকর প্রশ্ন করবেন না। কারও পোশাক বা সাজসজ্জা নিয়ে অথবা তার শারীরিক গঠন যেমন অতি ক্ষীণকায় অথবা স্থূল এসব নিয়ে অবান্তর প্রশ্ন করবেন না বা পরামর্শ দেবেন না। আপনার আচরণে, কথায় সহমর্মী হোন ও পরিপক্বতার পরিচয় দিন।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //