হজের নিবন্ধনের পুরো টাকা ফেরত দেয়া হবে

আবেদন ১২ জুলাইয়ের পর

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে এবার হজে যাওয়ার সুযোগ না থাকায় সরকারি-বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় নিবন্ধনের পুরো টাকাই ফেরত নিতে পারবেন। 

এক্ষেত্রে কোনো সার্ভিস চার্জ কেটে রাখা হবে না ও আগামী ১২ জুলাইয়ের পর অনলাইনে মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে।

আজ বুধবার (২৪ জুন) দুপুরে ধর্ম মন্ত্রণালয় হজ সংশ্লিষ্টদের নিয়ে অনলাইন সভায় এই সিদ্ধান্ত দেয়া হয়।

বৈঠক শেষে জানানো হয়, করোনা সংক্রমণের কারণে চলতি বছর খুবই সীমিত সংখ্যক হজযাত্রী নিয়ে পবিত্র হজ পালিত হবে বলে সৌদি আরব জানিয়েছে। তাই এ বছর হজে অংশগ্রহণের সুযোগ না থাকায় যেসব বাংলাদেশি নাগরিক হজে যাওয়ার জন্য নিবন্ধন করেছিলেন, তারা যেকোনো সময় তাদের নিবন্ধনের টাকা তুলে নিতে পারবেন। টাকা তুলে নেয়ার সময় কেউ যাতে হয়রানির শিকার না হন, সে বিষয়টিও খেয়াল রাখা হবে।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনোয়ার হোসোইন বলেন, এ বছর হজে যাওয়ার পথ বন্ধ হওয়ায় নিবন্ধনকারীরা ইচ্ছে করলে সামনে বছর যেতে পারবেন আর টাকা উত্তোলন করতে চাইলে কোনো ধরনের সার্ভিস চার্জ ছাড়াই টাকা তুলে নিতে পারবেন।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ নূরুল ইসলামের সভাপতিত্ব অনুষ্ঠিত বৈঠকে সিভিল এভিয়েশনের চেয়ারম্যান, হাব সভাপতি, হজ পরিচালক, হজ কাউন্সিলরসহ স্বরাষ্ট্র, স্বাস্থ্য ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিসহ বিভিন্ন দফতরের প্রায় ৩৯ জন কর্মকর্তা অংশগ্রহণ করেন।

সভায় নেয়া সিদ্ধান্তগুলো হলো-

১. চলতি বছরের প্রাক-নিবন্ধন ও নিবন্ধন যথারীতি ২০২১ (১৪৪২ হিজরি)  সালের প্রাক নিবন্ধন ও নিবন্ধন হিসেবে কার্যকর থাকবে।

২. আগামী বছর ২০২১ সালে কোনো কারণে হজ প্যাকেজের ব্যয় হ্রাস-বৃদ্ধি হলে তা হজযাত্রীর জমাকৃত অর্থের সমন্বয় করা হবে।

৩. কোনো হজযাত্রী নিবন্ধন বাতিল করলে একইসাথে তার প্রাক-নিবন্ধন বাতিল হয়ে যাবে ও তাকে নতুন করে প্রাক-নিবন্ধন করে হজে যেতে হবে।

৪. কোনো হজযাত্রী টাকা উত্তোলন করতে চাইলে অনলাইনে মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে আবেদন করবেন ও কোনো সার্ভিস চার্জ কর্তন ছাড়াই তাকে তার সমুদয় অর্থ ফেরত দেয়া হবে।

৫. বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রী নিবন্ধনের টাকা উত্তোলন করতে চাইলে সংশ্লিষ্ট হজ এজেন্সির মাধ্যমে অনলাইনে আবেদন করবেন এবং মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন সাপেক্ষে হজ এজেন্সির মাধ্যমে অথবা ব্যাংকের মাধ্যমে অর্থ গ্রহণ করবেন।

৬. সরকারি অথবা বেসরকারি ব্যবস্থাপনার যেসব হজযাত্রী নিবন্ধনের টাকা তুলতে চান তাদেরকে আগামী ১২ জুলাইয়ের পর আবেদন করতে হবে।

সৌদি বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক হজ চুক্তি অনুযায়ী ১৪৪১ হিজরিতে সরকারি ও বেসরকারি মিলিয়ে এবার বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ ৩৭ হাজার ১৯৮ জন হজযাত্রীর হজে যাওয়ার সুযোগ ছিল। তবেসরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে চূড়ান্ত নিবন্ধন করেছিলেন ৬৪ হাজার ৫৯৯ জন হজযাত্রী। তার মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৩ হাজার ৪৫৭ জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬১ হাজার ১২৪ জন।


মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh