স্বাস্থ্যবিধি মেনে হোসেনি দালানে তাজিয়া মিছিল

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

আশুরা উপলক্ষে পুরান ঢাকার হোসেনি দালান ইমামবাড়ায় ঐতিহ্যবাহী তাজিয়া মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণজনিত বিধিনিষেধের কারণে পুরো আয়োজন হোসেনি দালান চত্বরের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল।

আজ রবিবার (৩০ আগস্ট) সকাল ১০টায় আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয় পবিত্র আশুরার তাজিয়া। এ অনুষ্ঠান চলবে সন্ধ্যা ৭টা থেকে ৯টা পর্যন্ত। তবে দিনভর মিছিলের পাশাপাশি অন্যান্য আচার অনুষ্ঠানও চলবে।

প্রতিবারের মতো এবারো ‘হায় হোসেন, হায় হোসেন’ মাতমে চলছে তাজিয়া মিছিল। তবে এবারের মিছিলটা একটু ভিন্ন আঙ্গিকে। হোসেনি দালান প্রাঙ্গণে সমবেত হয়ে চক্রাকারে ঘুরে ঘুরে ‘হায় হোসেন, হায় হোসেন’ মাতম তুলে মিছিলের মতো ঘুরছেন শিয়া সম্প্রদায়ের মানুষেরা।

অন্যান্য বারের তুলনায় মানুষের পদচারণা তত বেশি না হলেও ইমামবাড়া প্রাঙ্গণমূলত কানায় কানায় পরিপূর্ণ হয়ে গেছে নারী-পুরুষ, যুবক এমনকি শিশুদের আনাগোনায়। তবে তাদেরকে ভেতরে প্রবেশের আগে দুই স্থরের নিরাপত্তা বেষ্টনি পার হয়ে ভেতরে ঢুকতে দেয়া হয়েছে। নিরাপত্তায় নিয়োজিত পুলিশ ও অন্যান্য সদস্যরা কড়া নজরদারিতে রয়েছেন পুরো হোসেনি দালান এলাকায়।

গত বুধবার করোনা মহামারির কারণে পবিত্র আশুরা পালন উপলক্ষে রাজধানীতে সব ধরনের তাজিয়া মিছিল নিষিদ্ধ করে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ইমামবাড়ায় ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করা যাবে বলে জানানো হয়।

হিজরি ৬১ সনের ১০ মহররম মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর দৌহিত্র হজরত ইমাম হোসেইন (আ.) এবং তাঁর পরিবার ও অনুসারীরা সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে যুদ্ধ করতে গিয়ে ফোরাত নদের তীরে কারবালা প্রান্তরে ইয়াজিদ বাহিনীর হাতে শহীদ হন।

এ ঘটনা স্মরণ করে বিশ্ব মুসলিম যথাযোগ্য মর্যাদায় দিনটি পালন করে থাকে। শান্তি ও সম্প্রীতির ধর্ম ইসলামের মহান আদর্শকে সমুন্নত রাখতে তাদের এই আত্মত্যাগ মানবতার ইতিহাসে সমুজ্জ্বল হয়ে রয়েছে। কারবালার এই শোকাবহ ঘটনা ও পবিত্র আশুরার শাশ্বত বাণী সবাইকে অন্যায় ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে এবং সত্য ও সুন্দরের পথে চলতে প্রেরণা জোগায়।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh