দৈনিক সংক্রমণে যুক্তরাষ্ট্রকে পেছনে ফেলল ভারত, একদিনে মৃত ২০২৩

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

ভারতে দৈনিক করোনাভাইরাস সংক্রমণ পৌঁছে গেল ২ লাখ ৯৫ হাজারে। একদিনে আক্রান্তের নিরিখে এই সংখ্যা শুধুমাত্র ভারতে নয় বিশ্বেও সর্বোচ্চ। 

চলতি বছরের ৮ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে আক্রান্ত হয়েছিলো ২ লাখ ৮৯ হাজার ১৯৫ জন। কোনো একটি দেশে একদিনে আক্রান্তের নিরিখে এই সংখ্যা এতদিন সর্বোচ্চ ছিল। দৈনিক সংক্রমণের নিরিখে আজ বুধবার (২১ এপ্রিল) নতুন রের্কড গড়ল ভারত।

দৈনিক মৃত্যুর নিরিখেও তৈরি হয়েছে নতুন রের্কড। দেশে এই প্রথম একদিনে মৃত্যু ২ হাজার ছাড়িয়ে গেল। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ২৩ জনের। 

করোনাভাইরাসের ছোবলে দেশে এখরো অবধি প্রাণ হারিয়েছেন ১ লাখ ৮২ হাজার ৫৫৩ জন। আর দেশটিতে একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৯৫ হাজার ৪১ জন। এনিয়ে মোট আক্রান্ত হলেন ১ কোটি ৫৬ লাখ ১৬ হাজার ১৩০ জন। মোট আক্রান্তের নিরিখে বিশ্বে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভারত, প্রথম যুক্তরাষ্ট্র।

দৈনিক আক্রান্তে জেরে সক্রিয় রোগীর সংখ্যাও হু হু করে বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সক্রিয় রোগী বেড়েছে ১ লাখ ২৫ হাজার ৫৬১। এখন দেশে মোট সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ২১ লাখ ৫৭ হাজার ৫৩৮ জন। 

যদিও এ বছর ফেব্রুয়ারি মাসের শেষের দিকে দেশে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা নেমেছিল দেড় লাখের নিচে। তারপর বাড়তে বাড়তে গেছে এই পরিস্থিতিতে। এর জেরে হাসপাতাল, স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোতে রোগীদের পরিষেবা দেয়ার পরিসর ক্রমেই কমে আসছে। অনেক ক্ষেত্রেই একই শয্যায় একাধিক রোগীকে শুয়ে থাকতে দেখা গিয়েছে। অক্সিজেনেরও অভাব সামাল দিতে মাঠে নেমেছে প্রশাসনও। অনেক জায়গাতেই অস্থায়ী কভিড কেয়ার কেন্দ্র তৈরি করে পরিস্থিতি মোবাবিলার চেষ্টা চালাচ্ছে বিভিন্ন রাজ্যের সরকার।

সংক্রমণ শৃঙ্খল রুখতে লকডাউনও জারি হয়েছে দেশের বিভিন্ন রাজ্যে। রাজধানী দিল্লিতে সোমবার থেকে চলছে লকডাউন। মহারাষ্ট্রেও ‘করোনা কারফিউ’ চলছে। উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশের মতো রাজ্যে সপ্তাহান্তে চলছে লকডাউন। রাত্রিকালীন কারফিউ জারি হয়েছে দেশের বিভিন্ন শহরে। 

এর পাশাপাশি ভারতে টিকাদান চলছে জোরকদমে। গত ২৪ ঘণ্টায় টিকা নিয়েছে ২৯ লাখ ৯০ হাজার ১৯৭ জন। এ নিয়ে ভারতে মোট কভিড টিকার ডোজ দেয়া হয়েছে ১৩ কোটি ১ লাখ ১৯ হাজার ৩১০। -আনন্দবাজার পত্রিকা

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh