মোহামেডানের ম্যাচ বর্জন, ফাইনালে আবাহনী

বাংলাদেশের হকিতে তিন বছর পর দুশ্চিন্তার মেঘ কেটে ক্লাব কাপ খেলাও মাঠে গড়িয়েছে। কিন্তু আবার দেখা দিয়েছে  সংকট। অধিনায়ক রাসেল মাহমুদ জিমিকে এক ম্যাচ নিষিদ্ধ এবং ৫০ হাজার টাকা জরিমানা বাতিল না করায় ক্লাব কাপ বর্জন করেছে মোহামেডান। 

বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) সেমিফাইনালে খেলতে আসেনি তারা। ফলে ওয়াকওভার পেয়ে টুর্নামেন্টের ফাইনালে পৌঁছে যায় মেরিনার্স। দিনের প্রথম সেমিতে আবাহনী ৬-২ গোলে অ্যাজাক্স বিপক্ষে জিতে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে। ১৬ অক্টোবর মেরিনার্স ও আবাহনী ফাইনাল খেলবে। 

১১ অক্টোবর পুলিশের বিপক্ষে ম্যাচে আম্পায়ার ইমতিয়াজ সুলতান সানিকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন রাসেল মাহমুদ জিমি। অভিযোগ রয়েছে, আম্পায়ারকে লাঞ্ছিত করা ছাড়াও জিমি ধাক্কা দেন পুলিশ স্পোর্টিং ক্লাবের গোলকিপার কাঞ্চন মিয়াকে, গলা চেপে ধরেন ডিফেন্ডার শাওন তিগ্যাকে। তর্কজুড়ে দেন পুলিশ হকি দলের ম্যানেজার ও পুলিশ কর্মকর্তা রাকিব হোসেন ভূঁইয়ার সঙ্গেও। পরে লিগ কমিটির সভায় জিমিকে এক ম্যাচ নিষিদ্ধ এবং ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। 

প্রিন্স বলেন, ‘বুধবার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার জন্য আবেদন করেছিলাম ফেডারেশনে। কিন্তু তারা তা করেনি। ১০ ম্যাচ নিষিদ্ধ হওয়া আম্পায়ার সানিকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগে কীভাবে জিমিকে শাস্তি দেওয়া হলো বুঝলাম না। আসলে মোহামেডানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে। তাই আমরা ক্লাব কাপ বর্জন করেছি এবং প্রিমিয়ার লিগে না খেলার সম্ভাবনাও রয়েছে।’ 

এদিকে ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইউসুফ বলেন, ‘লিগ কমিটি আম্পায়ার বোর্ডকে বলেছে সানিকে যেন কমপক্ষে ১০ ম্যাচ সাসপেন্ড করা হয়। ম্যাচের টেম্পারমেন্ট রাখতে না পারাটাই তার জন্য শাস্তি বয়ে এনেছে। আর মোহামেডান খেলতে না চাইলে তো কিছু করার নেই আমাদের। সেমিফাইনাল ম্যাচ খেলেনি। ওয়াকওভার পেয়ে ফাইনালে ওঠে গেছে মেরিনার্স।’ মোহামেডানের হকি ম্যানেজার আরিফুল হক প্রিন্স হুমকির সুরে বলেন, ‘লিগও বর্জন করতে পারি আমরা।’

২০১৮ সালে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব ও ঢাকা মেরিনার ইয়াংসের মধ্যকার লিগের শেষ ম্যাচে ঝামেলা হলে খেলাই বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীতে মোহামেডানকে চ্যাম্পিয়ন, ঢাকা আবাহনীকে রানার্সআপ এবং মেরিনার্সকে তৃতীয় স্থান ঘোষণা দেয় হকি ফেডারেশন। এরপর কেটে গেছে তিন বছর। 

নীলটার্ফ বেদনায় আরও নীল হয়েছে। কিন্তু মাঠে গড়ায়নি খেলা। অনেক দেন-দরবারের পর এ বছর আলোর মুখ দেখেছে হকি। দলবদল করেছে ১২টি ক্লাব। কোটাযুক্ত থেকেই অংশ নিয়েছেন বাহিনীর খেলোয়াড়রা। বিদেশিরাও এসেছেন বিভিন্ন ক্লাবে। খেলছেনও তারা। কিন্তু এর মাঝেই অশনি সংকেত।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //