সেরেনার বিদায়

টেনিসকে বিদায় বলে দিয়েছেন সেরেনা উইলিয়ামস। ২৭ বছরে ২৩টি গ্র্যান্ডস্লাম জেতার পর টেনিস থেকে অবসর নিলেন তিনি। ২৭ বছরের বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের ইতি টানার ইঙ্গিতটা বেশ কিছু দিন আগেই দিয়েছিলেন সেরেনা। জানিয়েছিলেন এবারের ইউএস ওপেনই হচ্ছে তার শেষ। প্রতিযোগিতাটির তৃতীয় রাউন্ডে অস্ট্রেলিয়ার আইলা তমলিয়ানোভিচের কাছে হেরে টেনিসকে বিদায় জানালেন সেরেনা।

পুরো ক্যারিয়ারজুড়েই লড়াকু মনোভাবের জন্য বিখ্যাত ছিলেন সেরেনা। শেষ দিনেও এর ব্যত্যয় ঘটল না। ফ্লাশিং মিডোর আর্থার অ্যাশ স্টেডিয়ামে শনিবার (৩ সেপ্টেম্বর) সেরেনা লড়েছেন তিন ঘণ্টারও বেশি সময়। শুরুর সেটে দারুণ লড়ে হারলেন ৭-৫ গেমে। এরপরের সেটে টাইব্রেকারে জিতলেন ৬-৭ গেমে, ফিরলেন ম্যাচে। তবে তৃতীয় সেটে আর পারলেন না। ৬-১ ব্যবধানে হেরে বিদায় নিশ্চিত হয়ে যায় আমেরিকান এই টেনিস তারকার।

হারের পর কোর্টে তার কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল, অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসবেন কিনা? বিষয়টি নিয়ে আরেকবার ভাবা যায় কিনা? ভেজা চোখে ৪০ বছর বয়সী সেরেনা উইলিয়ামসের উত্তর, ‘আমার মনে হয় না। তবে বলা তো যায় না!’

ক্যারিয়ার আর লম্বা করবেন না জানিয়ে সেরেনা আরও বলেছেন, ‘অভিযাত্রাটা মজার ছিল। আমার জীবনের সেরা অভিযাত্রা। যেসব মানুষ জীবনে একবারের জন্য হলেও আমাকে সমর্থন দিয়েছেন, তাদের সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা।’ এসময় গ্যালারিতে ছিলেন সেরেনার বোন ও সাতবারের গ্র্যান্ডস্লাম জয়ী ভেনাস উইলিয়ামস।

রিচার্ড উইলিয়ামস এবং ওরাসিন প্রাইসের ঘরে ১৯৮১ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর সেরেনার জন্ম। তার বয়স যখন ৩ বছর, তখন উইলিয়ামস পরিবার পাড়ি জমায় ক্যালিফোর্নিয়ায়। রিচার্ডের ইচ্ছা ছিল দুই মেয়েকে টেনিস খেলোয়াড় বানাবেন। তাই মেয়েদের ভর্তি করান কম্পটন টেনিস একাডেমিতে। ১৯৯৫ সালে পেশাদার জীবনের শুরু হয় সেরেনার।

এক পলকে সেরেনার ঝলমলে ক্যারিয়ার

  • ১৯৯৯ সালে ইউএস ওপেনের ফাইনালে সুইস গ্রেট মার্টিনা হিঙ্গিসকে হারিয়ে প্রথম গ্র্যান্ডস্লামের স্বাদ পান
  • ২০০২ সালে প্রথমবারের মতো নারী এককের শীর্ষে ওঠেন সেরেনা
  • ২০০২-১৭-এর মাঝে ক্যারিয়ারে মোট ৮ বার ছিলেন নারী এককের শীর্ষে 
  • জিতেছেন দুটি হপম্যান কাপ
  • মিয়ামি মাস্টার্স টুর্নামেন্টে নারী এককে জিতেছেন ৮ বার
  • দেশের হয়ে অলিম্পিকে সোনা জিতেছেন ৪ বার, যার মধ্যে একটি ছিল নারী এককে এবং বাকি ৩টি বড় বোন ভেনাসকে সঙ্গে নিয়ে দ্বৈতে
  • টানা ১৮৬ সপ্তাহ ছিলেন র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে
  • একক, দ্বৈত, এবং মিশ্র দ্বৈত সব মিলিয়ে তার গ্র্যান্ডস্লামের সংখ্যা ৩৯টি। ২৩টি একক, ১৪টি দ্বৈতে এবং বাকি ২টি মিশ্র দ্বৈতে
  • ডব্লিউটিএ চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছেন ৫ বার
  • পুরো ক্যারিয়ারজুড়ে তার মোট শিরোপার সংখ্যা ৭২টি
  • তার ক্যারিয়ারে সফলতার হার ৮৫ শতাংশ
  • ২০১৬-তে ছিলেন সর্বোচ্চ বেতনধারী নারী অ্যাথলেট। পরের বছর শীর্ষ ১০০ ধনী খেলোয়াড়ের মধ্যে ছিলেন একমাত্র নারী খেলোয়াড়। মোট ৪ বার জিতেছেন লরিয়াস সেরা নারী খেলোয়াড়ের পুরস্কার। ২০১৫-তে বিখ্যাত ম্যাগাজিন স্পোর্টস ইলাস্ট্রেটেড তাকে স্পোর্টস পার্সন অব দ্য ইয়ারে ভূষিত করে। 

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //