ফ্র্যাঞ্চাইজি হকি লিগের আয়োজন যখন চ্যালেঞ্জিং

প্রথমবারের মতো ২০২২ সালের নভেম্বরে দেশে আয়োজন করা হয় ফ্র্যাঞ্চাইজি হকি লিগের। তবে নতুন আরেকটি আসর শুরুর আগে প্রথম আসরের দেনা-পাওনার হিসাব নিয়ে বসেছেন খেলোয়াড়রা। দেশের তৃতীয় জনপ্রিয় খেলা হলেও হকি যে ফুটবল-ক্রিকেট থেকে যোজন যোজন দূরত্বে পিছিয়ে রয়েছে সেটা বারবারই প্রমাণ হচ্ছে। 

প্রিমিয়ার ডিভিশন হকি লিগেও চলছে অস্থিরতা। দেশি আম্পায়ারদের নিয়ে অভিযোগ থাকায় বিদেশি আম্পায়ার উড়িয়ে আনা হলেও সমস্যা রয়েই গেছে। মোহামেডান লিমিটেড, আবাহনী লিমিটেড, মেরিনার ইয়াংস ক্লাব ও উষা ক্রীড়া চক্রের ম্যাচগুলো নির্ধারিত সময়ে শেষ করা যায়নি। একজন আম্পায়ারের দেওয়া সিদ্ধান্ত নিয়ে বারবারই চ্যালেঞ্জ জানিয়ে তর্কে জড়িয়েছেন খেলোয়াড়রা। মাঠে আম্পায়ারদের সুরক্ষা দিলেও সমস্যা সমাধানে জোরালো কোনো ভূমিকাই রাখতে পারেনি বাংলাদেশ হকি ফেডারেশন (বাহফে)। 

এদিকে গত ১৯ এপ্রিল প্রিমিয়ার হকির অঘোষিত ফাইনালে আবাহনীর বিপক্ষে ৩-২ গোলে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত খেলতে অস্বীকৃতি জানায় মোহামেডান। মারামারিতে পণ্ড হওয়া ম্যাচটি মে মাসের যে কোনো সময় টার্ফে গড়াতে পারে। এ ছাড়া প্লেঅফ নিয়ে হকি ফেডারেশন চিঠি দিলেও এপ্রিল মাসে না খেলার কথা জানিয়েছে আবাহনী-মেরিনার দুই দলই। 

এ অবস্থার মধ্যে ফ্র্যাঞ্চাইজি হকির দ্বিতীয় আসরের তোড়জোড় শুরু হয়েছে। জুলাইয়ের যে কোনো সময় মাঠে গড়াতে পারে এই আসর। কিন্তু প্রথম আসরে কোচ ও খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক নিয়ে জটিলতা শেষ না করেই নতুন একটি আসর নিয়ে মাতামাতি শুরু হয়েছে। এই টাকা খেলোয়াড়দের দেওয়ার কথা ছিল লিগের স্বত্ব কেনা প্রতিষ্ঠান এইসের। কিন্তু স্পন্সর থেকে টাকা না পাওয়ায় তারা সেটা দিতে পারেনি। পরে দায়িত্ব নেয় হকি ফেডারেশন। কিন্তু ফেডারেশন এখনো খেলোয়াড়দের টাকা দিতে পারেনি। 

কোচ-খেলোয়াড়দের জন্যও তাই নতুন করে অস্বস্তি তৈরি হয়েছে। সময়ের হিসেবে ১৭ মাস পেরিয়ে গেলেও খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক দিতে না পারার ঘটনা ফ্র্যাঞ্চাইজি দুনিয়ার নজিরবিহীন। সব ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগেই কিছুটা ধীরে হলেও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পারিশ্রমিক পরিশোধ করার  নিয়ম হয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশের হকিতে সবকিছু ঠিকঠাক হতে শেষ কবে দেখা গেছে?

প্রথমবারের মতো ফ্র্যাঞ্চাইজি হকি টুর্নামেন্টে খেলতে পেরে যেন সব মুখ বুজে সহ্য করেছে। এমনিতে হকিতে যা পারিশ্রমিক সেটি দিতে না পারাকে কেউ কেউ দেউলিয়াত্ব বলছেন। ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে যেখানে টাকা নিয়ে কাড়াকাড়ি হয় সেখানে ‘গরিব’ খেলা হকিতে যেন আরও পিছিয়ে পড়ছে। খেলাটিকে ভালোবেসে কোনো ঝামেলায় জড়াতে চায় না বলেই ক্লাবের বিরুদ্ধে কঠোর কর্মসূচিতে যায়নি খেলোয়াড়রা। এখন দ্বিতীয় আসরে আশায় বুক বেঁধে আছেন, প্রথম আসরে যা বাকি রয়েছে সেগুলো এই আসরে দলগুলো পরিশোধ করে দেবে।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2024 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //