বেসামাল পেঁয়াজের বাজার

পাঁচ দেশ থেকে আসছে ১৯ টন

ভারতের রফতানি বন্ধের ঘোষণায় দেশে অস্থিরতা দেখা দিয়েছে পেঁয়াজের বাজারে। এক রাতেই প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ১০ থেকে ১৫ টাকা। বেসামাল হয়ে পড়েছে পেঁয়াজের বাজার।

পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে আলোচনায় এসে পড়ছে গত বছরের চিত্র। অনেকেরই মন্তব্য, এ যেনো সময়ের পুনরাবৃত্তি। গেলো বছর ঠিক এই সময় আচমকা পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ ঘোষণা করেছিলো ভারত। এবারও দেখা যাচ্ছে একই চিত্র। এতে কেবল পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতা নয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ও বেশ চিন্তিত। 

রাজধানীর বিভিন্ন বাজার সরেজমিনে দেখা গেছে, পেঁয়াজের দাম ৬০ টাকা থেকে ক্ষেত্র বিশেষে এরই মধ্যে ৯০ টাকায় পৌঁছেছে।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে সকাল থেকে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা পর্যন্ত। মান ভেদে ছুঁয়েছে ৯০ টাকাও। আর আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়ায় দিনের ব্যবধানে ১৫ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকায়।পেঁয়াজের অন্যতম বড় পাইকারি আড়ৎ শ্যামবাজারে কেজিতে ১০-১২ টাকা বেড়েছে। দাম বাড়ার খবরে বিক্রি কমিয়েছে দিয়েছেন আড়তদাররা।

যদিও বাজারের অস্থিরতা ঠেকাতে মাঠে নেমেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে তিনটি মোবাইল কোর্ট। এছাড়া, ভারত রফতানি বন্ধের আগেই বিকল্প দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানির প্রক্রিয়া শুরু করেছেন ব্যবসায়ীরা। চট্টগ্রাম থেকে এ পর্যন্ত ১৯ হাজার ৮৪৩ মেট্রিকটন টন পেঁয়াজ আমদানির অনুমতি নিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এই পেঁয়াজের জোগান দিচ্ছে চীন, মিয়ানমার, পাকিস্তান, মিশর ও তুরষ্ক।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরের উদ্ভিদ সংঘনিরোধ কেন্দ্রের উপপরিচালক আসাদুজ্জামান বুলবুল জানান,  গত ১১ দিন ধরে ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজ আমদানির অনুমতি (আইপি) নেয়ার জন্য আবেদন করেছেন। আমদানি যাতে দ্রুত হয়, এ জন্য আবেদন করার পর দ্রুতই অনুমতিপত্র দেয়া হচ্ছে। আজকেই অনুমতি দেয়া হয়েছে ১০ হাজার ৭৪২ মেট্রিকটন। 

উল্লেখ্য, ভারত থেকে গতকাল সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) হঠাৎ করেই পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ হয়ে যায়। সেই সিদ্ধান্ত আনুষ্ঠানিকভাবে জানানোর আগেই গতকাল সারদিন ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি না হওয়া দেশের বাজারে বিকেল থেকেই বাড়তে থাকে পেঁয়াজের দাম।


মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh