ইউরোপে চালু হলো ডিজিটাল কোভিড সার্টিফিকেট

স্মার্টফোনে ডিজিটাল পদ্ধতিতে কিউআর কোড দেখাতে হবে। ছবি : ডয়চে ভেলে

স্মার্টফোনে ডিজিটাল পদ্ধতিতে কিউআর কোড দেখাতে হবে। ছবি : ডয়চে ভেলে

ইউরোপীয় ইউনিয়নে অভিন্ন ডিজিটাল কোভিড সার্টিফিকেট চালু হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) থেকে এটি চালু হলো। এই ব্যবস্থা ভ্রমণের পথে বাধা দূর করার প্রতিশ্রুতি নিয়ে এলেও কার্যক্ষেত্রে অনেক সমস্যার আশঙ্কা দূর হচ্ছে না৷

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে গত প্রায় দেড় বছরের অনিশ্চয়তা ঝেড়ে ফেলে ১ জুলাই থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) মধ্যে ভ্রমণ আবার সহজ করে তুলতে একক কোভিড সার্টিফিকেট চালু করলো। ফলে কাগজে অথবা স্মার্টফোনে ডিজিটাল পদ্ধতিতে কিউআর কোড দেখিয়ে সদস্য দেশগুলোর মধ্যে অবাধ যাতায়াতের সুযোগ খুলে যাবার কথা। 

ইইউতে অনুমোদিত টিকার সব ডোজ পেলে, সম্প্রতি করোনা পরীক্ষার নেতিবাচক ফল থাকলে অথবা করোনাজয়ী হিসেবে প্রমাণ থাকলে সেই সার্টিফিকেট ব্যবহার করা যাবে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের আইন অনুযায়ী এই সার্টিফিকেট দেখালে সদস্য দেশগুলোতে ভ্রমণের সময় কোয়ারেন্টিন বা নতুন করে করোনা পরীক্ষার প্রয়োজন আর থাকবে না। আইসল্যান্ড, নরওয়ে, সুইজারল্যান্ড ও লিশটেনস্টাইনের মতো শেনঝেনভুক্ত দেশেও এই সার্টিফিকেট কার্যকর হচ্ছে।

কাগজে-কলমে অবাধ ভ্রমণের সুযোগ তৈরি হলেও করোনার চরম ছোঁয়াচে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের প্রসার বাস্তবে ইউরোপের মধ্যে ভ্রমণের পথে একের পর এক বাধা সৃষ্টি করছে। ফলে গ্রীষ্মের ছুটির মরসুমেও পর্যটকদের সতর্ক থাকতে হবে।

ইইউ আইনের মধ্যে জরুরি পরিস্থিতির সামাল দিতে হাতিয়ার হিসেবে যে ‘এমারজেন্সি ব্রেক' অন্তর্গত করা হয়েছে, জার্মানির মতো দেশ তার পূর্ণ ব্যবহার শুরু করে দিয়েছে। ডেল্টা সংক্রমণ এড়াতে পর্তুগাল থেকে জার্মানিতে প্রবেশ করতে কোনো ব্যতিক্রম ছাড়াই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। জার্মানির এমন একক সিদ্ধান্তের কারণে ইইউ বিরক্তি প্রকাশ করলেও কার্যক্ষেত্রে ভ্রমণের উপর নিষেধাজ্ঞার অধিকার সদস্য দেশগুলোর আছে।

ব্রিটেনে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের বেড়ে চলা প্রকোপের কারণেও ইউরোপে দুশ্চিন্তা বাড়ছে। ইউরোপের তুলনায় সে দেশে সংক্রমণের হার প্রায় সাত গুণ বেশি হওয়া সত্ত্বেও সেখান থেকে পর্যটকদের অবাধ প্রবেশ সুযোগ দেয়ায় চাপের মুখে পড়ছে ইউরোপের দক্ষিণের দেশগুলো। জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা মেরকেল এই সব দেশে ব্রিটিশ পর্যটকদের উপর নিয়ন্ত্রণের অভাবের সমালোচনা করেছেন।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যে ভ্যাকসিন সার্টিফিকেটের সুবাদে ও ইউরোপের বাইরে ‘নিরাপদ' দেশ থেকে ভ্রমণের সুযোগ সত্ত্বেও সদস্য দেশগুলোর বিধিনিয়মে পার্থক্যের কারণে বিমান ও পর্যটন শিল্প বিমানবন্দরে অরাজকতার আশঙ্কা করছে। তাছাড়া টিকার সব ডোজ পাওয়া মানুষের সংখ্যা এখনো যথেষ্ট কম হওয়ায় চলতি বছর পর্যটনের উপর ডিজিটাল সার্টিফিকেটের প্রভাব সীমিত থাকবে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

এদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন গতকাল বুধবার (৩০ জুন) কানাডাসহ ১১টি দেশকে ‘নিরাপদ' দেশের তালিকায় স্থান দিয়েছে। অর্থাৎ এই সব দেশ থেকে ইউরোপে ভ্রমণের ক্ষেত্রে বিধিনিয়ম অনেক শিথিল করা হচ্ছে। কিছু সদস্য দেশ এই সব দেশ থেকে প্রবেশের শর্ত হিসেবে নেগেটিভ কোভিড পরীক্ষা দাবি করতে পারে। - ডয়চে ভেলে

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //