মহাবিপদ সংকেত নামিয়ে বন্দরগুলোতে ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল আরো দুর্বল হয়ে পড়েছে। এর ফলে মহাবিপদ সংকেত নামিয়ে দেশের সমুদ্রবন্দরগুলোতে ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। 

এছাড়া নৌ-রুটগুলোকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত মেনে চলার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

মোংলা-পায়রা সমুদ্রবন্দরসহ উপকূলীয় নয় জেলায় জারি হওয়া ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত, চট্রগ্রাম বন্দরে ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেত ও কক্সবাজারে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত নামিয়ে সবখানেই ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল সম্পর্কে সর্বশেষ বিফ্রিংয়ে আজ রবিবার সকাল ১০টার দিকে আবহাওয়াবিদ সামছুদ্দিন আহমেদ এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড়টি বর্তমানে খুলনা-বাগেরহাট অঞ্চলে স্থল নিম্নচাপ হিসেবে অবস্থান করছে। সেজন্য সংকেতগুলো নামিয়ে দিতে বলা হয়েছে।

ঢাকা ও কুমিল্লাঞ্চল হয়ে দুপুর থেকে বিকেল নাগাদ ভারতের ত্রিপুরা থেকে আসাম এবং এর পার্শ্ববর্তী অঞ্চল দিয়ে অনেকটা দুর্বল হয়েই অতিক্রম করবে এই ঘূর্ণিঝড়। 

এটি ঘণ্টায় ৮-১০ কিলোমিটার গতিতে উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হচ্ছে। ঝড়টি দুপুর থেকে বিকেল নাগাদ ঢাকা ও কুমিল্লাঞ্চল হয়ে ভারতের ত্রিপুরা-আসামের দিকে অগ্রসর হতে হতে একেবারেই দুর্বল হয়ে যাবে। এর ফলে ঢাকাসহ ঝড়ের গতিপথ অঞ্চলে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকবে। 

বিশেষ আবহাওয়া বুলেটিনে আরো বলা হয়, গভীর নিম্নচাপের প্রভাবে চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, কুমিল্লা, ঢাকা, সিলেট ও ময়মনসিংহ জেলায় ভারি থেকে অতিভারি বর্ষণসহ ঘণ্টায় ৫০-৬০ কিলোমিটার বেগে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

এর আগে গতকাল শনিবার ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে পায়রা ও মোংলা সমুদ্রবন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত, চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরে ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়েছিল। এছাড়া উপকূলীয় জেলা ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা ও সাতক্ষীরায় ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়েছিল।

মন্তব্য করুন

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh