বরিশাল হাসপাতাল থেকে পালালো করোনা রোগী

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ড থেকে কভিড-১৯ পজিটিভ এক রোগী পালিয়ে গেছে।

শনিবার (২৩ মে) দুপুর থেকে তাকে ওয়ার্ডে পাওয়া যাচ্ছে না। পালিয়ে যাওয়া করোনা আক্রান্ত রোগীর নাম আব্দুল খালেক (৬০)। তিনি দ্বীপ জেলা ভোলার দৌলতখান উপজেলার কলাপোপা গ্রামের স্বয়ন উদ্দিনের ছেলে।

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের পরিচালক ডা. বাকির হোসেন এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এ নিয়ে শেবাচিমের করোনা ওয়ার্ড থেকে রোগী পালানোর সংখ্যা ৪ জন হয়েছে।

হাসপাতাল পরিচালক জানান, গত ২১ মে করোনা উপসর্গ নিয়ে শেবাচিম হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি হন আব্দুল খালেক। ওই দিনই তার নমুনা পরীক্ষার জন্য শেবামেকর আরটি-পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়।

সর্বশেষ ২২ মে রাতে পিসিআর ল্যাব থেকে দেয়া রিপোর্টে বৃদ্ধ খালেকের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। রাতেই করোনা ওয়ার্ডে দায়িত্বরতরা বিষয়টি ওই বৃদ্ধকে অবহিত করেন।

পরিচালক বলেন, দুপুরের দিকে ওই রোগীকে করোনা ওয়ার্ডে তার শয্যা পাশে ওষুধ নিয়ে খুঁজতে যান দায়িত্বরতরা। তখন থেকেই তার খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। এমনকি ভর্তি রেজিস্ট্রারে থাকা রোগীর নম্বরও বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। তাই তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে বলে জানান ডা. বাকির হোসেন।

এদিকে শুরু থেকেই শেবাচিম হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ নামেমাত্র নিরাপত্তার কথা বললেও বাস্তবে তার কিছুই নেয়। আর এ কারণেই ইতিপূর্বে করোনা ওয়ার্ড থেকে আরও তিনজন রোগী পালিয়ে যায়।

যদিও ওই তিন জনের কাররই করোনা পজিটিভ ছিলো না। তবে একের পর এক রোগী পালিয়ে যাওয়া এবং নিরাপত্তার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে হাসপাতাল পরিচালক ডা. বাকির হোসেন এর কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।

মন্তব্য করুন

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh