চাঁদপুরে নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ আটক ১

চাঁদপুরে করোনা ভাইসকে পুঁজি করে একটি অসাধু ব্যবসায়ী চক্র নকল স্যাভলন, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হ্যান্ড ওয়াস, মাক্স বিক্রি করে আসছে। যা বাজারগুলোতে সয়লাব হয়েছে, এবং এসব পণ্য কিনে প্রতারিত হচ্ছে সাধারণ মানুষ।

এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার (২৩ মে) দুপুরে শহরের নিলুফা ভবনের দ্বিতীয় তলায় অভিযান চালায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। গোয়েন্দা পুলিশের নবাগত ওসি রণজিত কুমার বড়ুয়ার নেতৃত্বে অভিযানে বিপুল পরিমাণে নকল স্যাভলন ও হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ একজনকে আটক করা হয়।

আটককৃত শোয়েব কলি গত ২ মাস ধরে অভিনব কায়দায় ফলের কার্টুনে করে নকল পণ্যের এই ব্যবসায়ী করে যাচ্ছেন বলে পুলিশ জানায়।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি রণজিত কুমার বড়ুয়া বলেন, আমাদের কাছে অভিযোগ ছিলো যে, করোনা ভাইসকে পুঁজি করে একটি অসাধু ব্যবসায়ী চক্র নকল স্যাভলন, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হ্যান্ড ওয়াস, মাক্স বিক্রি করে আসছে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে আজকে আমরা অভিযান চালিয়ে এসিআই ব্র্যান্ডের নকল স্যাভলন (ওসিআই, স্যাভলো), নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হ্যান্ড ওয়াস, নকল ব্র্যান্ডের লেবেল জব্দ করেছি।

এর মধ্যে ১০০০ মি. স্যাভলনক্স ৪৫০ পিস, ১০০০ মি. স্যাভলো ফ্যামিলি সাইজ ২০ পিস, ২০০ মি. সেইফ নিউ ফরমুলা ৪ কালার ৭০ পিস, ৪৫০ মি. ও ছোট সাইজ হ্যান্ড হাইজিইন-এক্স ৪০০ পিস। এসব পণ্য ও সরঞ্জাম উদ্ধারের পাশাপাশি মালিকে আটক করেছি। আটক ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্তা নেয়া হবে।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক রেজাউল করিম বলেন, আমরা প্রথমে আটক ব্যবসায়ীকে ফোন করলে তিনি জানান, যে তিনি কুমিল্লা আছে। অথচ সাথে সাথে বাড়িতে অভিযান দিয়ে দেখা যায়, তিনি ঘরে বসে নকল পণ্যে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের লেবেল লাগাচ্ছেন।

তিনি আরো জানান, ফলের কার্টুনে করে অভিনব কায়দায় পণ্যগুলো ঢাকা থেকে আনা হতো এবং চাঁদপুরে বাজারজাত করা হতো।

আটকৃত শোয়েব কলি বলেন, আসলে আমি বুঝতে পারিনি এগুলো নকল পণ্য। আমার এক বন্ধু ঢাকায় এই ব্যবসা করে। তার মধ্যে এগুলো চাঁদপুরে এনে বিক্রি করেছি। আমি যদি জানতাম যে এসব পণ্য বিক্রি করা অন্যায়, তবে এই ব্যবসা করতাম না।

এদিকে চাঁদপুরের সচেতন মহলের দাবী আটক ব্যক্তির কাছ থেকে তথ্য নিয়ে চাঁদপুরে যেই, যেই ফার্মেসীতে এই নকল পণ্যগুলো পাইকারি দেয়া হয়েছে সেগুলোতে অভিযান করার অনুরোধ জানান। কারণ ফার্মেসীগুলো জেনে বুঝে কেনো নকল পণ্য বিক্রি করে মানুষকে ঠকিয়েছে।

মন্তব্য করুন

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh