বার্গার খাচ্ছেন না তো?

ছবি: ভিক্স

ছবি: ভিক্স

নতুন প্রজন্মের প্রিয় খাবার বার্গার। সেই বার্গারের আছে রকমফের। কোনোটায় থাকে ক্রিসপি আবার কোনোটাতে গ্রিলড প্যাটির। সঙ্গে থাকে সিঙ্গেল বা ডাবল চিজ। লেটুস পাতার গা ঘেঁষে মেয়োনেজ বেয়েপড়া একটি বার্গারের আবেদন অগ্রাহ্য করার ক্ষমতা অনেকেরই নেই। বার্গার শরীরের ক্ষতি করার জন্য যথেষ্ট।

জাঙ্ক ফুটে প্রচুর ক্যালরি, ফ্যাট, অতিরিক্ত সোডিয়াম থাকে। তাই এ ধরনের খাবার খেলে শরীরের ক্ষতি হতে পারে। একটি মাঝারি বার্গারে গড়ে ৫০০ ক্যালরি। যারা ওজন কমানোর চেষ্টা করছেন তাদের জেনে রাখা ভালো যে, ৫০০ ক্যালরি পোড়াতে প্রায় ১ ঘণ্টা দৌড়াতে হয়।

বার্গারে আরও আছে ২৫ গ্রাম ফ্যাট, ৪০ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট, ১০ গ্রাম চিনি এবং ১০০০ মিলিগ্রাম সোডিয়াম থাকে। এই উপাদানগুলো আপনার শরীরে ক্ষতি করার জন্য যথেষ্ট। 

বার্গারে প্রথম কামড় বসানোর পনেরো মিনিট পড়ে শরীরে গ্লুকোজের পরিমাণ বেড়ে যায়। এতে ইনসুলিন তৈরি হয়, যা আপনাকে কয়েক ঘণ্টা পরেই আবার ক্ষুধার্ত করে তুলবে। এভাবে নিয়মিত চলতে থাকলে ডায়াবেটিস হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। 

নিয়মিত বার্গার খেলে রক্তনালিগুলো দুর্বল ও সঙ্কুচিত হয়ে পড়ে। ফলে হৃদপিন্ডের সমস্যা দেখা দেয় এবং হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যুর ঝুঁকি বাড়ে।

তাই এরপর থেকে যখন বার্গার খেতে ইচ্ছে করবে, তখন এসব ক্ষতিকর দিকের কথা মনে করবেন। তাহলেই বার্গার খাওয়ার ইচ্ছা চলে যাবে।

মন্তব্য করুন

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh