বেসরকারি কলেজ

শিক্ষকদের আরো দুটি প্রমোশন পাওয়া অধিকার

সৈয়দ শাহাদাত হোসাইন। সহকারী অধ্যাপক, বাকলিয়া শহিদ এন এম এম জে বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, চট্টগ্রাম।

সৈয়দ শাহাদাত হোসাইন। সহকারী অধ্যাপক, বাকলিয়া শহিদ এন এম এম জে বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, চট্টগ্রাম।

শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড হলে শিক্ষক জাতি গঠনের মহান কারিগর। মেধাবীরা এই পেশায় আসার সুযোগ দিলে জাতি মেধাবী শিক্ষক পেতো, কিন্ত অবহেলিত বেসরকারি শিক্ষা ব্যাবস্থায় বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মেধাবীরা দুরের কথা বেক বেঞ্চেরেরাও আসবে না- কারন তারা এই পেশায় আর্থিক নিরাপত্তা পাচ্ছে না। 

উচ্চ বিদ্যালয় গুলোতে শিক্ষকরা আন্দোলনের মাধ্যমে একটি প্রমোশন আদায় করেছে ইতিপূর্বে তারা সহকারি শিক্ষকের পদবী নিয়ে অবসর নিতে হতো। কলেজগুলোতে অযৌক্তিক অনুপাত প্রথায় না আসলে আজীবন একজন কলেজ শিক্ষককে প্রভাষক থেকে অবসর নিতে হয় যা অত্যন্ত অমানবিক, যে কলেজে আজীবন প্রভাষক সে কলেজের ছাত্র বিসিএস কিংবা অন্য কলেজে যোগদান করে সহজে সহকারী অধ্যাপক হতে পারছেন অথচ যিনি কলেজের শিক্ষক হয়ে সে ছাত্রটিকে মানুষ করেছেন তিনি অনুপাত প্রথা চালু থাকার কারনে সহকারী অধ্যাপক হতে পারেননি।

বেসরকারি কলেজ শিক্ষকদের এর চেয়ে লজ্জাজনক আর কি হতে পারে? আগে আট বছর পর সহকারি অধ্যাপক হতে না পারলে একটি উচ্চতর স্কেল পেতেন বর্তমান নিয়মে তা ১৬ বছর পেরুলে পাবে তাও এক ধরনের বৈষম্য করা হয়েছে। অবিলম্বে বেসরকারি শিক্ষকদের অনুপাত প্রথা তুলে দিয়ে সহকারী অধ্যাপক, সহযোগী অধ্যাপকসহ অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের সদয় বিবেচনার জন্য দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

লেখক: সৈয়দ শাহাদাত হোসাইন।
সহকারী অধ্যাপক
বাকলিয়া শহিদ এন এম এম জে বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, চট্টগ্রাম।

মন্তব্য করুন

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh