মাস্ক পরতে চাপের মুখে ট্রাম্প

ডোনাল্ড ট্রাম্প

ডোনাল্ড ট্রাম্প

মাস্ক পরে উদাহরণ সৃষ্টির জন্যে দ্বিপক্ষীয় তীব্র চাপের মুখে পড়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। 

এদিকে তার স্বাস্থ্যমন্ত্রী সতর্ক করে বলেছেন, কনজারভেটিভ নেতৃত্বাধীন রাজ্যগুলোতে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস মহামারি নিয়ন্ত্রণের সুযোগ শেষ হয়ে যাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের অর্ধেকেরও বেশি অঙ্গরাজ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে গেছে। এর মধ্যে দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলের রাজ্যগুলো করোনায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত। দেশব্যাপী সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা ২৫ লাখ ছাড়িয়েছে। মারা গেছে এক লাখ ২৫ হাজারেরও বেশি লোক। এ অবস্থায় আরো কঠোর পদক্ষেপ নিতে বিভিন্ন মহল থেকে আহ্বান জানানো হচ্ছে।

স্বাস্থ্য ও মানব সেবা মন্ত্রী এলেক্স আজার সিএনএনকে বলেন, পরিস্থিতি খুবই মারাত্মক। করোনা নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ গ্রহণের সুযোগ শেষ হয়ে আসছে।

তাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল ট্রাম্প কেন জনসম্মুখে মাস্ক পরে উদাহরণ তৈরিতে অস্বীকৃতি জানাচ্ছেন, বিশেষ করে মাস্ক পরা স্বাস্থ্য উপদেষ্টাদের পাশে দাঁড়িয়েও তিনি পরছেন না, আর হোয়াইট হাউস থেকে বারবার ব্যখ্যা দেয়া হচ্ছে যে তিনি প্রতিদিন করোনার পরীক্ষা করাচ্ছেন।

সাধারণত প্রেসিডেন্টের সমালোচনা করতে অনাগ্রহী অনেক রিপাবলিকানই মাস্ক ব্যবহারের ওপর জোর দিয়ে আসছেন। এদের কেউ কেউ আবার প্রেসিডেন্টের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছেন মাস্ক পরে উদাহরণ তৈরি করতে।

রিপাবলকিান সিনেটর লামার আলেক্সজান্ডার গতকাল রবিবার (২৮ জুন) সিএনএনকে বলেছেন, স্বাস্থ্য বিশেজ্ঞরা আমাদের বলছেন মাস্ক পরা গুরুত্বপূর্ণ, যদি তাই হয় তবে প্রেসিডেন্ট যদি মাস্ক পরতেন তাহলে আমরা রাজনৈতিক বিতর্ক থেকে মুক্তি পেতাম।

রাজনৈতিক বিতর্কটি হলো যদি ট্রাম্পের পক্ষে থাকো তবে তুমি মাস্ক পরবে না, আর যদি বিপক্ষে থাকো তাহলে মাস্ক পরবে।

যুক্তরাষ্টের অনেক এলাকাতেই মাস্ক পরা বা না পরা স্বাস্থ্য সুরক্ষার চেয়ে রাজনৈতিক বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এদিকে কিছু ডেমোক্র্যাটরাও চাচ্ছেন ট্রাম্প কেবল উদাহরণই সৃষ্টি করবেন না বরং তিনি দেশব্যাপী মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করবেন।

আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেন বলেছেন, জনসমাগম স্থলে তিনি মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করার চেষ্টা করবেন।

হাউস স্পিকার ন্যান্সি পেলোসিকে এবিসি যখন জিজ্ঞেস করলো এ পদক্ষেপ সমর্থন করেন কিনা তার জবাবে নিশ্চিত অনেক দেরি হয়ে গেছে বলে তিনি উল্লেখ করে বলেন, বিশ্বে করোনাভাইরাসে আমাদের দেশের সবচেয়ে খারাপ রেকর্ড। আর প্রেসিডেন্ট বলছেন আমাদের অগ্রগতি হচ্ছে।

পেলোসি আরো বলেন, প্রেসিডেন্টের উদাহরণ হওয়া উচিত। সত্যিকারের মানুষেরা মাস্ক পরে। দেশের জন্যে উদহারণ তৈরি করুন ও মাস্ক পরুন।

মন্তব্য করুন

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

<