পরিকল্পনামন্ত্রীর জন্য কচুরিপানা নিয়ে সংসদে রওশন এরশাদ

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নানের সমালোচনা করেছেন সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ। 

তিনি বলেন, আজ পেপারে দেখলাম আমাদের পরিকল্পনামন্ত্রী বলেছেন, গরু যদি কচুরিপানা খেতে পারে তাহলে মানুষ কেনো খেতে পারবে না। আমাদের দেশে কী এখন দুর্ভিক্ষ দেখা দিছে যে কচুরিপানা খেতে হবে। আজ তো পরিকল্পনামন্ত্রী আসেননি। আমরা তো কিছু কচুরিপানা নিয়ে আসছিলাম। ওনাকে দিতাম।

মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সংসদ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর সমাপনী বক্তব্য রাখতে গিয়ে এ তথ্য জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, গরুর খাবার কী মানুষ খেতে পারবে নাকি মানুষের খাবার গরু খেতে পারবে। ঘাসের মধ্যে তো অনেক ভিটামিন আছে তাহলে আমরা ঘাস খাই না কেনো?

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি সংসদে অনুপস্থিত থাকায় তার সমালোচনা করে রওশন বলেন, শিক্ষামন্ত্রী তো প্রায় বিদেশে থাকেন, তাকে সংসদেও দেখি না। তাহলে কীভাবে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন ঘটবে?

বক্তব্যের একপর্যায়ে রওশন এরশাদ প্রশ্ন রাখেন, ‘নারীর ক্ষমতায়ন কোথায়?’ এ সময় স্মিত হেসে প্রধানমন্ত্রী আঙুল দিয়ে নিজের, স্পিকার ও বিরোধী দলীয় নেতাকে ইঙ্গিত করেন। সংসদ সদস্যরা এ সময় টেবিল চাপড়ে প্রধানমন্ত্রীকে সমর্থন জানান।

এরপর রওশন এরশাদ বলেন, আমি বলতে চাইছি যে ভাগ্যচক্রে এটা হয়ে গেছে। গুটিকয়েক মহিলাকে নিয়ে নারীর ক্ষমতায়নের কথা বলা যাবে না। শিক্ষার হার দেখতে হবে। নারীরা কীভাবে নির্যাতিত হচ্ছে এটা দেখতে হবে।

দেশে নারীর ক্ষমতায়ন হয়নি দাবি করে রওশন বলেন, প্রধানমন্ত্রীতো প্রধানমন্ত্রী, তিনি থাকবেন। প্রধানমন্ত্রীকে কেউ সরাতে পারবেন না। আর তিনি নিজে বিরোধী দলীয় নেতা হয়েছেন ভাগ্যক্রমে। সংসদে পুরুষ সদস্য বেশি, নারী কম। গুটি কয়েক নারীকে নিয়ে নারীর ক্ষমতায়নের কথা বলা যাবে না।

বিরোধীদল হিসেবে জাতীয় পার্টির কর্মকাণ্ড তুলে ধরে রওশন এরশাদ বলেন, জাতীয় পার্টি বিরোধী দল হিসেবে সরকারের ভুল ত্রুটি তুলে ধরছে। পাশাপাশি সরকারের সঙ্গে সমন্বয় করে উন্নয়নে সহযোগিতা করছে। যে কারণে দেশ দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশের উন্নয়নে জাতীয় পার্টি ভূমিকা কোনো অংশে কম নয়। ইতিহাস একদিন এর মূল্যায়ন করবে।


মন্তব্য করুন

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh