আল্লাহ ক্রোধান্বিত, এর চেয়ে বড় শাস্তি আর কী হতে পারে!

কোরআনে আল্লাহ বলেন, ‘হে মুমিনগণ! তোমাদের জন্য রোজা ফরজ করা হলো, যেমন ফরজ করা হয়েছিল তোমাদের পূর্বে যারা ছিল তাদের প্রতিও; যাতে করে তোমরা মুত্তাকি হতে পার।’ (সুরা-২ বাকারা: আয়াত- ১৮৩)

রোজাদার ব্যক্তিকে আল্লাহ নিজ হাতে পুরস্কার দেয়ার ঘোষণাসহ যে অঢেল ফজিলত রেখেছেন, তেমনি রোজা যারা রাখবে না, তাদের জন্য রয়েছে ভয়াবহ শাস্তি। 

আবু উমামা (রা.) বলেন, আমি রাসূলকে (সা.) বলতে শুনেছি ‘আমি ঘুমিয়ে ছিলাম। স্বপ্নে দেখলাম আমার নিকট দুই ব্যক্তি আগমন করল। তারা আমার বাহুদ্বয় ধরে আমাকে এক দুর্গম পাহাড়ে নিয়ে এলো। তারপর আমাকে বলল, আপনি পাহাড়ের ওপর উঠুন। আমি বললাম, আমি তো উঠতে পারব না। তারা বলল, আমরা আপনাকে সহজ করে দেব। আমি ওপরে উঠলাম। যখন পাহাড়ের সমতলে পৌঁছলাম, হঠাৎ ভয়ংকর আওয়াজ শুনতে পেলাম। আমি বললাম, এসব কিসের আওয়াজ? তারা বললেন, এটা জাহান্নামিদের আর্তনাদ। তারপর তারা আমাকে নিয়ে এগিয়ে চলল। হঠাৎ কিছু লোক দেখতে পেলাম, যাদেরকে তাদের পায়ের মাংসপেশি দ্বারা ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে এবং তাদের মুখের দুই প্রান্ত ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে এবং তা থেকে রক্ত ঝরছে। আমি বললাম, এরা কারা? তারা বললেন, যারা ইফতারের সময় হওয়ার আগেই রোজা ভেঙে ফেলে।’ (ইবনে খুযাইমা : ১৯৮৬; ইবনে হিববান: ৭৪৪৮)

কেউ যদি কোনো কারণ ছাড়া রোজা ভাঙে বা না রাখে তাহলে তার পরিণতি সম্পর্কে আল্লাহর রাসূল (সা.) বলেছেন, এতে আল্লাহ তায়ালা ক্রোধান্বিত হন। শাস্তি কী হবে, এটা বলা হয়নি। ক্রোধান্বিত হয়ে আল্লাহ তায়ালা যা ইচ্ছা শাস্তি দিতে পারেন। কারও ওপর আল্লাহ তায়ালা ক্রোধান্বিত, এর চেয়ে বড় শাস্তি আর কী হতে পারে!

রাসূল (সা.) বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি শরিয়তসম্মত কোনো কারণ ছাড়া এ মাসে (রমজান) একটি রোজা ছেড়ে দেবে, সে যদি এর বদলে সারা জীবনও সিয়াম পালন করে তবু তার পাপের খেসারত হবে না।’ (বুখারি)

রোজা এমন জিনিস নয় যে, তা একজন সুস্থ ব্যক্তির পক্ষে রাখা সম্ভব নয়। আল্লাহ তায়ালা নিজেই বলেছেন, ‘আল্লাহ কাউকে তার সাধ্যের বাইরে কোনো কাজ চাপিয়ে দেন না। সে যা ভালো কাজ করেছে তার ফল পাবে এবং যা খারাপ করেছে তা তার বিরুদ্ধে যাবে।’ (সুরা বাকারা : ২৮৬)

সমাজে এমন অনেক মেহনতি মানুষ আছেন, যারা রিকশা চালান, ক্ষেতে বদলি দেন, কায়িক শ্রম দেন, তারাও তো রোজা রাখছেন। মূলত বিষয়টা হলো বিশ্বাস আর  ইচ্ছার ওপর নির্ভর। যে যেভাবে ইচ্ছা করে, আল্লাহ তায়ালা তাকে সেভাবে রাখেন। 

মন্তব্য করুন

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

© 2020 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh