মোদি-অমিত শাহ তো নিজেরাই অনুপ্রবেশকারী: অধীর চৌধুরী

লোকসভায় কংগ্রেস দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী।

লোকসভায় কংগ্রেস দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ তো নিজেরাই ভারতের নাগরিক নন, তারাও অভিবাসী, এমন বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন লোকসভায় কংগ্রেস দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী। 

রাজধানী নয়াদিল্লিতে গতকাল রবিবার সংবাদসংস্থা এএনআইকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ সংক্রান্ত মন্তব্য করেন।  

কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার এনআরসি ও নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে যে তৎপরতা চালাচ্ছে সে সম্পর্কে অধীর বলেন, ‘আমি তো এটা বলতে পারি যে, নরেন্দ্র মোদিজী, অমিত শাহজী আপনারা খোদ অনুপ্রবেশকারী। কারণ আপনাদের বাড়ি গুজরাটে কিন্তু দিল্লিতে চলে এসেছেন। আপনারা তো স্বয়ং অভিবাসী। বৈধ কি অবৈধ তা তো পরে জানা যাবে।

তিনি বলেন, গোটা দেশে জাতীয় নাগরিকপঞ্জি নিয়ে এমন পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে যে, আমাদের দেশের প্রকৃত নাগরিক তারাও ভাবছেন আমাদের কী হবে। মানুষজন সব নথিপত্র নিয়ে বসে নেই। কারণ তারা জানেন এটা আমাদের দেশ। আমরা ভোট দিই। এতসমস্ত নথিপত্র জোগাড় করার কী প্রয়োজন আছে? 

তিনি আরো বলেন, বিশেষ করে যারা গরীব  মানুষ, উপজাতি, পিছিয়েপড়া শ্রেণি, যারা লেখাপড়া জানেন না, নিরক্ষর তাদের কাছে কী কখনো নথিপত্র থাকে? সকালে ঘুম থেকে উঠে একটাই চিন্তা তাদের যে রাতের খাবার বা আগামীকালের খাবার তারা কীভাবে জোগাড় করবেন। তাঁদের কাছে নাগরিকত্বের বিভিন্ন নথিপত্র খোঁজার সময় নেই। এসব লোকেরাই আজ ভীত হয়েছে।

এর আগে অমিত শাহ রাজ্যসভায় বলেছেন, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল আনা এজন্যেই প্রয়োজন- কেননা হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ, জৈন, খ্রিস্টান ও পার্সী শরণার্থীরা, যাদের পাকিস্তান, বাংলাদেশ বা আফগানিস্তানে ধর্মের ভিত্তিতে বৈষম্য করা হচ্ছে, তারা যাতে ভারতীয় নাগরিকত্ব পান।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, ২০১৬, যা চলতি বছরের ৮ জানুয়ারি লোকসভায় পাস হয়, এর লক্ষ্য হলো বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বরের আগে ভারতে আসা অমুসলিম অভিবাসীদের নাগরিকত্ব প্রদান করা।  

বিজেপিকে টার্গেট করে অধীর বলেন, তারা দেখাতে চায় যে মুসলিমদের তাড়ানো হবে। কিন্তু মুসলিমদের বিতাড়িত করার সাহস তাদের নেই। মুসলিমরা যদি আমাদের দেশের নাগরিক হয় তারা কেন বিতাড়িত হবে? কারণ ভারত সবার জন্য। হিন্দু-মুসলিমসহ সকলের জন্য। গঙ্গা-যমুনা সংস্কৃতির ভারত। ভারত গড়ায় সকলের সহযোগিতায় রয়েছে। কিন্তু তারা দেখাতে চায় হিন্দুদের থাকতে দেবে কিন্তু মুসলিমদের বিতাড়িত করবে। ভারত কী কারও জায়গীর নাকি? এখানে বসবাসকারী সবারই সমান অধিকার।

বিলের সমালোচনা করে তিনি বলেন, অমিত শাহের নাগরিকত্ব বিলটি পাস করার জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যা রয়েছে, তবে বিলটি পাস হওয়ার পরে যা ঘটবে তা একেবারেই অন্য একটি বিষয়। বিজেপি যদি মনে করে নাগরিকত্ব বিল প্রয়োগ করে ভারতের উন্নতি হতে পারে, তবে এটা তাদের অবাস্তব চিন্তাভাবনা ছাড়া আর কিছুই নয়।

কংগ্রেসের এই নেতা বিজেপিকে সতর্ক করে বলেন, নাগরিকত্ব বিল ইস্যু করার কারণেই তারা পশ্চিমবঙ্গে (বিধানসভা উপনির্বাচনে) দাঁড়াতে পারেনি। তারা যদি এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখে তবে তারা ভারতের অন্যান্য অংশ থেকেও হারিয়ে যাবে। -পার্সটুডে ও এনডিটিভি

মন্তব্য করুন

সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার

© 2019 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh