করোনার টিকায় গুরুতর অসুস্থতা চমকপ্রদভাবে কমে গেছে: গবেষণা

করোনাভাইরাসের টিকা সংক্রমিতদের হাসপাতালে ভর্তি হবার মতো গুরুতর অসুস্থ হওয়া ব্যাপকভাবে কমিয়ে দিতে পারে- তার প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে যুক্তরাজ্যের স্কটল্যান্ডে চালানো এক জরিপে।

স্কটল্যান্ডের জনস্বাস্থ্য বিভাগের চালানো গবেষণায় দেখা গেছে- প্রথম ডোজ টিকা দেবার চার সপ্তাহ পর করোনাভাইরাস সংক্রমিত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া চমকপ্রদভাবে কমে গেছে।

যারা ফাইজার-বায়োএনটেকের তৈরি টিকা নিয়েছেন তাদের মধ্যে করোনাভাইরাস সংক্রমণজনিত গুরুতর অসুস্থতা ৮৫ শতাংশ কমে গেছে ও অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা গ্রহণকারীদের মধ্যে এই হার কমেছে ৯৪ শতাংশ।

ওই জরিপের প্রধান গবেষক অধ্যাপক আজিজ শেখ বলেন, দুটো ভ্যাকসিনই দারুণভাবে কাজ করছে এবং তা ভবিষ্যতের ব্যাপারে আশাবাদী হবার মতো।

স্কটল্যান্ডে ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ১১ লাখ ৪০ হাজার লোককে কভিডের টিকা দেয়া হয়। টিকা নেয়া এই লোকদের মধ্যে কতজন কভিডে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন - তার সাথে তুলনা করে দেখা হয়, যারা-টিকা নেননি তাদের মধ্যে কতজন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

সব মিলিয়ে দেখা যায়- যারা টিকা নেবার পর চার সপ্তাহ পার করেছেন তাদের মধ্যে মাত্র ৫৮ জন কভিড আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। অন্য গ্রুপটি অর্থাৎ টিকা না নেয়া লোকদের মধ্যে থেকে আট হাজার লোক কভিড সংক্রমণ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

এছাড়া যাদের বয়স ৮০’র বেশি তাদের মধ্যে হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যা কমেছে ৮১ শতাংশ।

ওই জরিপের প্রধান গবেষক অধ্যাপক আজিজ বলেন, এই ফলাফল অত্যন্ত চমৎকার এবং দুটো ভ্যাকসিনই দারুণভাবে কাজ করছে।

বিবিসির স্বাস্থ্য বিষয়ক সংবাদদাতা লিসা সামার্স বলছেন, বাস্তব জগতে কভিডের টিকা কেমন কাজ করছে তা জানার জন্য স্কটল্যান্ডের এ জরিপ ছিল বেশ সুবিধাজনক। কারণ এখানকার জনসংখ্যা কম ও পুরো জনগোষ্ঠীর উপাত্ত দ্রুতগতিতে পাওয়া সম্ভব।

তবে তিনি বলছেন, এ জরিপের সীমাবদ্ধতা হচ্ছে, এখানে শুধুমাত্র টিকা নেবার পর করোনাভাইরাসের সংক্রমণে গুরুতর অসুস্থ হবার সম্ভাবনা কতটা কমলো সেটাই দেখা হয়েছে। টিকা নেবার পরও কেউ ভাইরাসে সংক্রমিত হতে পারে কি না বা অন্যদের মধ্যে রোগ ছড়াতে পারে কি না- তা দেখা হয়নি। একটা নির্দিষ্ট সময় পরে টিকা গ্রহণকারীদের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাবে কিনা- তাও দেখা হয়নি এ জরিপে।

কিন্তু আসল কথা হলো, মাত্র এক ডোজ টিকা নেবার পরই গ্রহণকারীদের করোনাভাইরাস সংক্রমণে গুরুতর অসুস্থ হবার সম্ভাবনা ৮৫ থেকে ৯৪ শতাংশ পর্যন্ত কমে যাচ্ছে। এটা স্পষ্টভাবেই বেরিয়ে এসেছে এ জরিপে।

বিশ্বের বহু দেশেই এখন করোনাভাইরাসের টিকা দেয়া শুরু হয়ে গেছে। এ পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি টিকা দেয়া হয়েছে ইসরায়েল, সংযুক্ত আরব আমিরাত, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রে।

বিশ্বব্যাপী এখন পর্যন্ত ১১ কোটি ২২ লাখ ৬৩ হাজার ১১৭ লোক করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন এবং এ পর্যন্ত ২৪ লাখ ৮৫ হাজার ৩৮৪ জন লোকের মৃত্যু হয়েছে। করোনায় সবচেয়ে বেশি লোকের মৃত্যু হয়েছে যথাক্রমে- যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল, মেক্সিকো, ভারত ও যুক্তরাজ্যে। -বিবিসি

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh