শত বছরের সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যা অস্ট্রেলিয়ায়

অস্ট্রেলিয়ার দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে আবার ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে দেশটিতে ১০০ বছরের মধ্যে ভয়াবহ বন্যার কারণে সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। 

কয়েকদিনের টানা ভারি বৃষ্টিতে সিডনির আশপাশে ও কুইন্সল্যান্ডের দক্ষিণপূবাঞ্চলের নদী ও বাঁধগুলো উপচে পড়ছে।

আজ সোমবার (২২ মার্চ) আবার বৃষ্টির কারণে সিডনিতে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে, নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যও প্লাবিত হয়েছে। সেখানে ৩৮ এলাকা দুর্যোগপূর্ণ বলে ঘোষণা দেয়া হয়েছে। 

এছাড়া ১৮ হাজার মানুষকে সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কুইন্সল্যান্ডেও বন্যার সতর্কতা জারি করা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার মোট জনগোষ্ঠীর এক-তৃতীয়াংশের বসবাস যে এলাকাগুলোতে সেখানেই বন্যা দেখা দিয়েছে আর এতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

নিউ সাউথ ওয়েলসে  বন্যায় ডুবে যাওয়া একটি সড়ক। ছবি: রয়টার্স

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন টুজিবি রেডিও স্টেশনকে বলেছেন, দেশের জন্য এটি একটি বড় পরীক্ষা।

গত ২৪ ঘণ্টায় নিউ সাউথ ওয়েলসে ২৫ সেন্টিমিটারেরও বেশি বৃষ্টি হয়েছে। রাজ্যটির ৮০ লাখ বাসিন্দাকে অপ্রয়োজনে ঘরের বাইরে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। সম্ভব হলে ঘরে থেকে কাজ করতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। অথচ মাত্র এক বছর আগে এখানে খরা, পানির সংকট ও দাবানল হয়।

নিউ সাউথ ওয়েলসের প্রধান গ্ল্যাডিস বেরেজিকলিয়ান বলেছেন, ৩৮টি এলাকা দুর্যোগপূর্ণ জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। ১৮ হাজার মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে যেতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কোনো দেশের ইতিহাসে এত অল্প সময়ে আবহাওয়া এত চরমভাবাপন্ন হয়ে উঠতে তিনি দেখেননি। মহামারির মধ্যে এমন বিরূপ আবহাওয়া সংকট আরো বাড়িয়েছে।

জরুরি সংস্থাগুলোর কাছে সহযোগিতার জন্য কমপক্ষে ৮ হাজার ৮০০ ফোন এসেছে। নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যের মিড নর্থ কোস্ট বন্যায় বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বেরেজিকলিয়ান ১০০ বছরের মধ্যে এটি অন্যতম বড় দুর্যোগ বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

নিউ সাউথ ওয়েলসে বন্যা

সিডনির হাওকেসবুরি নেপেয়ান ভ্যালিতে নদীগুলো প্লাবিত হয়েছে। ১৯৬১ সালের পর থেকে নদীর পানি এমন ফুলেফেঁপে ওঠেনি। গত শনিবার বিকেলে সুপেয় পানির উৎস ওরেগামবা বাঁধ ভেঙে যায়। কর্তৃপক্ষ বলছে, এই রাজ্যে দুই শতাধিক স্কুল বন্ধ রয়েছে। অনেক স্কুল বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

কুইন্সল্যান্ড রাজ্যেও বন্যা সতর্কতা জারি করা হয়েছে। বন্যার কারণে সিডনি ও এর আশপাশের এলাকায় করোনাভাইরাসের টিকাদান স্থগিত রয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার আবহাওয়া ব্যুরো সাম্প্রতিক দিনগুলোর বৃষ্টিপাতের পরিমাণকে ‘অস্বাভাবিক’ বলে বর্ণনা করেছে। কিছু কিছু এলাকায় সর্বোচ্চ এক হাজার মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হয়েছে। -এএফপি ও বিবিসি

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh