করোনার টিকা প্রয়োগ ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহ থেকে

ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রেজেনেকার টিকা বাংলাদেশে আগামী ২১ থেকে ২৫ জানুয়ারির মধ্যে আসবে। ২৬ জানুয়ারি থেকে রেজিস্ট্রেশন হবে। ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহ থেকে জাতীয়ভাবে টিকা দেয়া শুরু হবে। প্রথম দফায় দেশে করোনার টিকা দেয়া হবে ৫০ লাখ মানুষকে।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদফতরের এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম। এ সময় কর্মসূচির বিস্তারিত তথ্য উপস্থাপন করেন টিকা বিতরণ কমিটির সদস্য অধ্যাপক শামসুল হক।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ১৮ বছরের নিচে এবং গর্ভবতী নারীদের টিকা দেয়া হবে না। প্রতিটি কেন্দ্রে দুজন নার্স থাকবেন, যারা টিকা দেবেন। থাকবেন চার জন স্বেচ্ছাসেবী। রেজিস্ট্রেশন করার পর এসএমএস করে টিকা নেয়ার দিন ও সময় জানানো হবে।

খুরশীদ আলম বলেন, বেক্সিমকো ফার্মা আমাদের জানিয়েছে, আগামী ২১ থেকে ২৫ জানুয়ারির মধ্যে এই টিকা বাংলাদেশে আসবে। টিকা আসার পর দুই দিন বেক্সিমকোর ওয়্যারহাউজে থাকবে। সেখান থেকে স্বাস্থ্য অধিদফতরের তালিকা অনুযায়ী দেশের বিভিন্ন জেলায় পাঠিয়ে দেয়া হবে।

আগে সিদ্ধান্ত ছিলো প্রথম ডোজের পর দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হবে ২৮ দিন পর। এখন ওই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হয়েছে। দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হবে ৮ থেকে ১২ সপ্তাহ পর। এ বিষয়ে এবিএম খুরশীদ আলম বলেন, এর আগে আমাদের জানানো হয়েছিল প্রথম ডোজ দেয়ার ২৮ দিন পর দ্বিতীয় ডোজ দিতে হবে। তবে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রেজেনেকার নতুন তথ্য অনুযায়ী, প্রথম ডোজ দেয়ার দুই মাস পর দ্বিতীয় ডোজ দেয়া যাবে। গতকাল নতুন নিয়ম জানার পর আমরা পরিকল্পনায় পরিবর্তন এনেছি। এ কারণে প্রথম মাসেই একসঙ্গে ৫০ লাখ মানুষকে টিকা দেয়া হবে।  প্রথম যে ৫০ লাখ টিকা আসবে তা দিয়ে দেয়া হবে। দুই মাসের মধ্যে আরো টিকা চলে আসবে।

সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা ও অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা বক্তব্য রাখেন।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh