টিকটক কি ‘ব্লু হোয়েলের’ মতো আরেক মরণফাঁদ!

টিকটকে ব্ল্যাকআউট নামে বেল্ট অথবা অন্য কিছু ব্যবহার করে ফাঁসিতে ঝুলতে বা আত্মহত্যা করতে প্ররোচনা দেওয়ার নতুন এক চ্যালেঞ্জে তরুণ-তরুণীরা মৃত্যুর মুখে পড়ছে কিনা তা তদন্তের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশন।

আজ মঙ্গলবার (১২ জুলাই) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সংগঠনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ এ দাবি জানান।

ব্ল্যাকআউট হলো এমন একটি চ্যালেঞ্জ; যেখানে তরুণ-তরুণীকে তার বেল্ট অথবা অন্য কিছু ব্যবহার করে ফাঁসিতে ঝুলতে বা আত্মহত্যা করতে প্ররোচনা দেয়। এটিকে অনেকেই বলছেন মারনঘাতী ‘ব্লু হোয়েল’ হিসেবে।

মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, আমরা দীর্ঘদিন যাবত দাবি করে আসছিলাম, টিকটককে নিয়ন্ত্রণ ও জবাবদিহিতার মধ্যে আনতে। এ বিষয়ে ইতিমধ্যে হাইকোর্টে রিট করা হয়েছে। কিন্তু কোনো কিছুতেই টিকটককে জবাবদিহিতার আওতায় ও নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না কেন; তা আমাদের বোধগম্য নয়।

তিনি আরো বলেন, টিকটকের ভিডিও মেকিং প্লাটফর্মে ব্ল্যাকআউট চ্যালেঞ্জ রয়েছে বলে বিভিন্ন দেশেও প্রচুর অভিযোগ রয়েছে। ইতিমধ্যে ইতালি, যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রিয়া, ওকলাহোমা ও পেনসসেলভেনিয়ায় ব্ল্যাকআউট চ্যালেঞ্জের কারণে মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। ফলে অনেক তরুণ-তরুণী ও অভিভাবক টিকটকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

গত কয়েক বছর যাবত চীনা শর্ট ভিডিও মেকিং প্লাটফর্ম টিকটকের অপব্যবহার এতটা বেড়েছে যে; বর্তমান প্রজন্মের তরুণ তরুণীদের কাছে এটি মৃত্যুফাঁদ হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে, যোগ করেন বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি।

গত ৮ জুলাই নোয়াখালীর চাটখিলে টিকটক ভিডিও বানানোর সময় অসাবধানতাবশত পা পিছলে সানজিদা আক্তার নামে ১১ বছর বয়সী এক কিশোরীর মৃত্যু হয়। ১১ জুলাই কুমিল্লার চলন্ত ট্রেনের ছাদে টিকটক করতে গিয়ে পা পিছলে মেহেদী হাসান ১৫ বছর বয়সী এক কিশোরের মৃত্যু হয়।

২০১৯ সালের মার্চ মাসে টিকটক ভিডিও আপলোডকে কেন্দ্র করে অষ্টম শ্রেণির ছাত্র আরাফাত খুন হয়। একই বছর টিকটক বানানোর প্রলোভনে ভারতে তরুণী পাচারের ঘটনা ঘটে। সে বছর জুনে এক তরুণীকে ধর্ষণও করা হয় সামাজিক এ ভিডিও মাধ্যমের ফাঁদে ফেলে। এ ছাড়া পাড়া মহল্লায় যে কিশোর গ্যাং গড়ে উঠেছে তার পেছনে টিকটকের ভূমিকাকে অগ্রগণ্য হিসেবে দেখা হয়।

মহিউদ্দিন আহমেদ আরো বলেন, আমাদের দেশের মোবাইল অপারেটরদের জনসচেতনতা তৈরিতে নিষ্ক্রিয়তা ও নিয়ন্ত্রক কমিশন কোনো উদ্যোগ গ্রহণ না করায় দিন দিন টিকটকের অপব্যবহার বেড়েই চলেছে। সরকারের সাইবার সিকিউরিটি নিরাপত্তা সেলের টিকটকে ব্ল্যাকআউট চ্যালেঞ্জ অপশন রয়েছে কিনা তা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে দাবি জানিয়েছেন তিনি।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //