এমপি আজীম হত্যা

আমি কীভাবে আসামি হলাম: শিলাস্তি রহমান

‘আমি কীভাবে আসামি হলাম?’ আদালত কক্ষে প্রশ্ন তুলেছেন শিলাস্তি রহমান। ঝিনাইদহ–৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম হত্যায় গ্রেপ্তার শিলাস্তি রহমানের কাছ থেকে ওকালতনামায় সই নিতে গেলে তিনি কেঁদে এ প্রশ্ন তোলেন।

আজ শুক্রবার (২৪ মে) ঝিনাইদহ–৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারকে হত্যার উদ্দেশ্যে অপহরণের মামলায় গ্রেপ্তার তিন আসামির রিমান্ড আবেদনের ওপর শুনানি হয়। বিকেলে শুনানি শেষে তিনজনেরই আটদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দিলরুবা আফরোজ তিথির আদালত।

শুনানির শুরুতে শিলাস্তি রহমানের কাছে এক আইনজীবী ওকালতনামায় স্বাক্ষর নিতে যান। তখন আদালতে কেঁদে ফেলেন সেলেস্তা। তিনি বলেন, আমি কোনো ওকালতনামায় স্বাক্ষর দিবো? আমি কীভাবে আসামি হলাম। আমি শুধু ওই বাসায় ছিলাম। তাছাড়া কিছুই জানি না।’

গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা হলেন—শিমুল ভূঁইয়া ওরফে শিহাব ওরফে ফজল মোহাম্মদ ভূঁইয়া ওরফে আমানুল্যাহ সাঈদ (৫৬), তানভীর ভূঁইয়া (৩০) ও শিলাস্তি রহমান (২২)।

শুক্রবার আসামিদের আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন ডিবি পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার মাহফুজুর রহমান। শুনানিতে আসামি পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না। শুনানির শুরুতে আসামিদের কাছ থেকে ওকালতনামায় সই নেওয়া হয়। তবে সেলেস্তা রহমান সই না করায় তার রিমান্ড বাতিলের বিষয়ে শুনানি হয়নি। পরে আদালত তিন আসামির ৮ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, গত ১৩ মে থেকে নিখোঁজ হন এমপি আজীম। আনোয়ারুল আজীমের পরিবারের সদস্যরা জানান, গত ১২ মে চিকিৎসার জন্য ভারতে যান তিনি। ১৩ মে তিনি হোয়াটসঅ্যাপে জানান, দিল্লি যাচ্ছেন। এরপর তার সঙ্গে আর যোগাযোগ করা যায়নি। কলকাতা পুলিশ বুধবার জানায়, আজিম খুন হয়েছেন। একই দিন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানও জানান, সংসদ সদস্য আজীমকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

এ ঘটনার পর বুধবার সংসদ সদস্য আজীমের খোঁজ চেয়ে রাজধানীর শেরে বাংলা নগর থানায় মামলা করেন তার মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন। হত্যায় জড়িত সন্দেহে ওই দিনই তিনজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2024 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //