ত্বক ও চুলের যত্নে কলা

বারোমাসি ফলের মধ্যে কলা কমবেশী সবারই পছন্দের। শর্করা, প্রোটিন ও অন্যান্য পুষ্টিগুণসম্পন্ন কলা খেতেও বেশ মজাদার। কলায় থাকা প্রচুর পরিমান ফাইবার বিভিন্ন রোগ থেকে দেহকে রক্ষা করে। কলা শরীরের শক্তি বাড়ায়। শুধু এগুলোই নয়, কলা মানুষের ত্বক এবং চুলের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধিতেও সহায়তা করে। কারণ কলায় রয়েছে প্রচুর পরিমান পটাসিয়াম ও ভিটামিন এ, বি এবং সি। এসব দিক বিবেচনায় দৈনিক খাদ্য তালিকায় আপনিও রাখতে পারেন কলা। ত্বক ও চুলের যত্নে কলা কীভাবে কাজ করে, চলুন দেখে নেই।

ত্বকের যত্ন

তৈলাক্ত ভাব নিয়ন্ত্রণে: কলা মানুষের দেহে এক্সফোলিয়েটার হিসেবে কাজ করে। তাই ত্বকের অতিরিক্ত তৈলাক্ত ভাব কমে আসে।

অ্যান্টি এজিং হিসেবে: কলাতে উচ্চ মাত্রায় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে যা প্রকৃতির বোটক্স হিসেবে কাজ করে। এটি মানুষের বয়স বৃদ্ধি সত্ত্বেও ত্বকের উজ্জ্বলতা ও মসৃণতা ধরে রাখতে সাহায্য করে।

ব্রণের চিকিৎসায়: ভিটামিন এ, জিংক ও ম্যাঙ্গানিজের মতো অনেক পুষ্টি উপাদান আছে কলাতে। যা মানুষের শরীরের প্রদাহ দূর করতে সহায়তা করে। কলার খোসা ত্বকের ব্রণ সারাতে কাজ করে।

দ্য বডি শপের স্কিনকেয়ার বিশেষজ্ঞ প্লাবিতা শর্মা বলেছেন, কলা সুন্দর ত্বক ধরে রাখতে সহায়তা করে। শুষ্ক ত্বককে নরম ও কোমল করে তোলে। কলাতে থাকা ভিটামিন এ ত্বকের শুষ্ক ও রুক্ষভাব দূর কাজ করে।

চুলের যত্নে

খুশকির চিকিৎসায়: খুশকির কারণে মাথার ত্বকে জ্বালা ও শুষ্কতা দেখা দিতে পারে। পাশাপাশি ছত্রাক ও ব্যকটেরিয়াজনিত সমস্যাও হতে পারে। এই সমস্যা সমাধানে স্কিনকেয়ার বিশেষজ্ঞ প্লাবিতা শর্মা বলেছেন, মাথার ত্বকে কলা খোসা লাগালে আর্দ্রভাব ফিরে আসে এবং অন্যান্য ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ক্ষয়কারী উপদ্রবের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। তিনি আরো বলেন, কলার বিভিন্ন অংশে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল থাকে। এ জন্য কয়েক শতাব্দী ধরে কলার বিভিন্ন অংশ( খোসা, পাতা, ফুল ও ফুল) চিকিৎসায় বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যবহার হয়।

রুক্ষতা দূরীকরণে: কলায় উচ্চ মাত্রায় সিলিকা থাকে। এটি শুকনো চুলকে মসৃণ করতে সহায়তা করে। তাছাড়া, সিলিকা দেহে শোষিত হয়ে কোলাজেন প্রোটিন তৈরি করে। যেটা সুন্দর চুল তৈরিতে ভূমিকা রাখে।

চুলের উজ্জ্বলতায়: চুলের আর্দ্রভাব ফিরে পেতে কলার ব্যবহার অপরিহার্য। কলাতে আছে প্রচুর পরিমাণ পটাসিয়াম, ভিটামিন, ক্যালসিয়াম ও কার্বোহাইড্রেট। এই সব চুলের পুষ্টি জোগায়। আর চুলকে করে তোলে মসৃণ ও চকচকে।

চুলের বৃদ্ধিতে: কলাতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। যা মানুষের মাথার চুলকে বৃদ্ধি করে। প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় কলার ব্যবহার মানুষের চুলের বৃদ্ধি ও চুলের গোড়া শক্তিশালী করে তোলে।

তাই দিনে অন্তত দুটি কলা খাদ্যবাসে যোগ করে আপনিও হতে পারেন রোগমুক্ত ও সুস্বাস্থের অধিকারী।

-ইন্ডিয়ানএক্সপ্রেস

বিষয় : কলা

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //