এডিবি: ১০ খাতে সর্বোচ্চ বরাদ্দ

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভায় আসন্ন ২০২১-২০২২ অর্থবছরের জন্য ২ লাখ ৩৬ হাজার ৭৯৩ কোটি ৯ লাখ টাকার বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা বা কর্পোরেশনের ১১ হাজার ৪৬৮ কোটি ৯৫ লাখ টাকার এডিপি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। স্বায়ত্তশাসিত সংস্থার এডিবি বাদে এডিপি আকার দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ২৫ হাজার ৩২৪ কোটি ১৪ লাখ টাকা।

মঙ্গলবার (১৮ মে) সকাল সাড়ে ১০টায় এনইসির চেয়ারপারসন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় এডিপি অনুমোদন দেয়া হয়।

শেরেবাংলা নগরে এনইসি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন। এছাড়া সচিবালয়ের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকেও কয়েকজন মন্ত্রী ও সচিব বৈঠকে সংযুক্ত হন। পরে সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান বিস্তারিত তুলে ধরেন।

সর্বোচ্চ বরাদ্দ

বরদ্দের মধ্যে খাতভিত্তিক ১০টি খাতেই বরাদ্দ হয়েছে ২ লাখ ১০ হাজার ৪২১ কোটি টাকা, যা মোট এডিপির ৯৩.৩৯%।

এই খাতগুলো হলো পরিবহন ও যোগাযোগ: প্রায় ৬১ হাজার ৬৩১ কোটি টাকা (২৭.৩৫%); বিদ্যুৎ ও জ্বালানি: প্রায় ৪৫ হাজার ৮৬৮ কোটি টাকা (২০.৩৬%);  গৃহায়ন ও কমিউনিটি সুবিধাবলী: প্রায় ২৩ হাজার ৭৪৭ কোটি টাকা (১০.৫৪%); শিক্ষা: প্রায় ২৩ হাজার ১৭৮ কোটি টাকা (১০.২৯%);স্বাস্থ্য: প্রায় ১৭ হাজার ৩০৭ কোটি (৭.৬৮%);  স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন: প্রায় ১৪ হাজার ২৭৪ কোটি (৬.৩৪%); পরিবেশ, জলবায়ু পরিবর্তন ও পানি: প্রায় ৮ হাজার ৫২৬ কোটি টাকা (৩.৭৮%);  কৃষি: প্রায় ৭ হাজার ৬৬৫ কোটি টাকা (৩.৪০%);  শিল্প ও অর্থনৈতিক সেবা: প্রায় ৪ হাজার ৬৩৮ কোটি টাকা (২.০৬%) এবং  বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি: প্রায় ৩ হাজার ৫৮৭ কোটি টাকা (১.৫৯%)।

এডিপিতে মন্ত্রণালয়ভিত্তিক সর্বোচ্চ বরাদ্দ পাওয়া ১০টি মন্ত্রণালয় বা বিভাগ হচ্ছে- স্থানীয় সরকার বিভাগ: প্রায় ৩৩ হাজার ৮৯৬ কোটি টাকা; সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ: প্রায় ২৮ হাজার ৪২ কোটি টাকা; বিদ্যুৎ বিভাগ: প্রায় ২৫ হাজার ৩৪৯ কোটি টাকা; বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়: প্রায় ২০ হাজার ৬৩৪ কোটি টাকা; রেলপথ মন্ত্রণালয়: প্রায় ১৩ হাজার ৫৫৮ কোটি টাকা; স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ: প্রায় ১৩ হাজার কোটি টাকা; মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ: প্রায় ১১ হাজার ৯২০ কোটি টাকা; সেতু বিভাগ: প্রায় ৯ হাজার ৮১৩ কোটি টাকা; প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়: প্রায় ৮ হাজার ২২ কোটি টাকা এবং পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়: প্রায় ৬ হাজার ৮৭১ কোটি টাকা।

এদিকে সর্বোচ্চ বরাদ্দপ্রাপ্ত ১০টি প্রকল্প হচ্ছে- রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ: প্রায় ১৮ হাজার ৪২৬ কোটি ১৬ লাখ টাকা; মাতারবাড়ি আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কোল পাওয়ার্ড পাওয়ার প্রজেক্ট: প্রায় ছয় হাজার ১৬২ কোটি টাকা; চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচি (পিইডিপি-৪): প্রায় পাঁচ হাজার ৫৩ কোটি ৯৮ লাখ টাকা; ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট (লাইন-৬): প্রায় চার হাজার ৮০০ কোটি টাকা; পদ্মা সেতু রেল সংযোগ (প্রথম সংশোধিত): প্রায় তিন ৮২৩ কোটি ৫১ লাখ টাকা; বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতু নির্মাণ: প্রায় তিন হাজার ৫৮০ কোটি টাকা; পদ্ম বহুমুখী সেতু নির্মাণ (দ্বিতীয় সংশোধিত): প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা;ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ: প্রায় তিন হাজার ২২৭ কোটি ২০ লাখ টাকা; এক্সপানশন অ্যান্ড স্ট্রেংদেনিং অব পাওয়ার সিস্টেম নেটওয়ার্ক আন্ডার ডিপিডিসি এরিয়া: প্রায় তিন হাজার ৫১ কোটি ১১ লাখ টাকা এবং হযরত শাহজালার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সম্প্রসারণ (প্রথম পর্যায় ও প্রথম সংশোধিত): প্রায়  দুই হাজার ৮২৭ কোটি ৫২ লাখ টাকা।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh