প্রফেসর ড. হান্নান ফিরোজ স্মারক বক্তৃতা অনুষ্ঠিত

অনুষ্ঠানে কথা বলছেন স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ফাতিনাজ ফিরোজ

অনুষ্ঠানে কথা বলছেন স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ফাতিনাজ ফিরোজ

বিশিষ্ট গণমাধ্যম উদ্যোক্তা এবং স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা প্রফেসর ড. হান্নান ফিরোজের ৬৬তম জন্মবার্ষিকীতে ‘প্রফেসর ড. হান্নান ফিরোজ স্মারক বক্তৃতা- ০১’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (২ অক্টোবর) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটোরিয়ামে স্টামফোর্ড  বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক ফোরাম এ স্মারক বক্তৃতার আয়োজন করে। 

অনুষ্ঠানের প্রধান বক্তা বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক এবং নিউজ টুয়েন্টি ফোর টেলিভিশনের সিইও নঈম নিজাম বলেন, বাংলাদেশের মিডিয়ায় হান্নান ফিরোজের ভূমিকা অতুলনীয়। তাঁর পৃষ্ঠপোষকতা না পেলে অনেক গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠিত হতো না। 

হান্নান ফিরোজের স্মৃতিচারণ করে নঈম নিজাম বলেন, ড.হান্নান ফিরোজের সবচেয়ে বড় গুণ ছিলো উদারতা। যেকোনো সংকটের মধ্যে তিনি তার জায়গা থেকে কাজ করে গেছেন। তিনি একজন ভালো রাজনীতিবিদ ছিলেন। তিনি যেমন রাজনীতি করেছেন তেমনি শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষার প্রসারে অনন্য ভূমিকা রেখেছেন।

‘আমাদের পত্রিকা, টেলিভিশন বিভিন্ন জায়গায় স্টমফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সম্মানের সহিত কাজ করছে’ যোগ করেন নঈম নিজাম। 

স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ফাতিনাজ ফিরোজ বলেন, হান্নান ফিরোজ প্রথমে স্টামফোর্ড স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন, তারপর সেখানে পড়ার জন্য অনেক বাচ্চাকে তিনি নিয়ে আসতেন। সেটি এখন একটি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ হিসেবে শিক্ষার বিকাশে ভূমিকা রাখছে। এসব কিছুতে হান্নান ফিরোজের বিশাল অবদান রয়েছে। তার জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত শিক্ষার সাথে অঙ্গাঙ্গীভাবে যুক্ত।

তিনি বলেন, হান্নান ফিরোজের মতাদর্শের প্রতি আস্থা রেখে আমরা স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় চলছে। প্রায় দুই দশক ধরে স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় একটি আন্তর্জাতিক মানের উচ্চ শিক্ষা কেন্দ্র হিসেবে গৌরব অর্জন করেছে। স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়-এর উদ্দেশ্য হলো গবেষণালব্ধ জ্ঞান ও প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে সার্বজনীন শিক্ষার ব্যবস্থা করে জাতি গঠনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করা, একইসঙ্গে সে শিক্ষা থেকে অর্জিত জ্ঞান দ্বারা দেশে-বিদেশে নিজেদের ভবিষ্যৎ দিয়ে কর্মকাণ্ড পরিচালনা করা, এই ছিলো ড. হান্নান ফিরোজ এর লক্ষ্য ও স্বপ্ন। আমরা সে লক্ষ্যেই চলছি। 

‘সাংবাদিকতার দায়িত্ব অনেক বিরাট, অনেক গুরুত্বপূর্ণ এবং শক্তিশালী। সাংবাদিকতার মাধ্যমে একটি জাতির পরিবর্তন হতে পারে’ উল্লেখ করেন ফাতিনাজ ফিরোজ।

স্টামফোর্ড সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি হাসান ওয়ালীর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আকরাম হোসেনের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য রুমানা হক রিতা, ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য ড. ফারাহনাজ ফিরোজ, রেজিস্ট্রার আব্দুল মতিন, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক কাজী আব্দুল মান্নান, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক কামরুজ্জামান মজুমদার, সাংবাদিক ফোরামের কনভেনর মোশাররফ হোসেন, কো-কনভেনর তপন মাহমুদ, স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার এডভাইজার রেহানা আক্তার, জনসংযোগ বিভাগের প্রধান সুপা সাদিয়া। 

এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তা এবং সাংবাদিক ফোরামের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //