তালাবদ্ধ মওলানা ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি

আন্দোলনের দ্বিতীয় দিনেও তালাবদ্ধ রয়েছে মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর (ভিসি) প্রফেসর ড. মো. ফরহাদ হোসেন। 

তৃতীয় শ্রেণিতে এডহক ভিত্তিতে কর্মরত ২২জন কর্মচারীদের চাকরি স্থায়ীকরণের দাবিতে গতকাল বুধবার সকাল ৯টা ১৫ মিনিট থেকে ভাইস-চ্যান্সেলরের কার্যালয় তালাবদ্ধ করা হয়।

আন্দোলনকারীদের সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ অক্টোবর তৃতীয় শ্রেণি কর্মচারী সমিতির পক্ষ থেকে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। উক্ত স্মারকলিপিতে ১৪ দফা দাবি জানানো হয়। 

১. তৃতীয় শ্রেণি কর্মচারী সমিতির সাথে পরামর্শক্রমে পরবর্তী বাছাই বোর্ড সমূহ দেওয়ার অনুরোধ করা হলো। 

২. বিজ্ঞাপিত পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে ১০০% অভ্যন্তরীণ প্রার্থীদের নিয়োগ প্রদান করা। ২। অভ্যন্তরীণ প্রার্থীদের শুধু মাত্র মৌখিক ভাইবা বোর্ডের ব্যবস্থা করা। 

৩. বিজ্ঞাপিত ১৫টি পদের বিপরীতে ২২ জন এডহক ভিত্তিতে নিয়োজিত কর্মচারীদের স্থায়ীকরণ করা। 

৪. তৃতীয় শ্রেণি কর্মচারীদের অসামঞ্জস্য পদকে সামঞ্জস্য করে নীতিমালায় অন্তর্ভুক্ত করা। 

৫. যথাসময়ে তৃতীয় শ্রেণি কর্মচারীদের আপগ্রেডেশনের ব্যবস্থা করা। 

৬. ড্রাইভারদের অধিকাল ভাতাসহ টিএডিএ প্রদান করা। 

৭. তৃতীয় শ্রেণি কর্মচারীদের জন্য পৃথক মিনিবাসের ব্যবস্থা করা। 

৮. তৃতীয় শ্রেণি কর্মচারী নিয়োগের ক্ষেত্রে ৮০% টাঙ্গাইলের লোকদের নিয়োগ প্রদান করা। 

৯. তৃতীয় শ্রেণি কর্মচারীদের নিয়োগে পোষ্য কোঠা নির্ধারণ করা। 

১০. এ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের জন্য মোটর কার ও মোটরসাইকেলের জন্য কর্পোরেট লোনের ব্যবস্থাকরণ। 

১১. তৃতীয় শ্রেণি কর্মচারী সমিতির জন্য একটি কার্যালয়ের ব্যবস্থাকরণ। 

১২. তৃতীয় শ্রেণী কর্মচারীদের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় রেশিও অনুযায়ী গেস্ট গাউজের ব্যবস্থাকরণ। 

১৩. বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়িচালক এবং কারিগরি কর্মচারীদের দাপ্তরিক সাজ-পোশাকের জন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ২০১৮ সালের পরিপত্র এবং বাংলাদেশের গেজেট অনুযায়ী ব্যবস্থাকরণ। 

১৪. এ বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত তৃতীয় শ্রেণির কোনো চাকরিজীবী চাকরিরত অবস্থায় মৃত্যুবরণ করলে মৃত কর্মচারীর পরিবার থেকে একজন তার শিক্ষাগত যোগ্যতা অনুযায়ী চাকরি প্রদান করা।

আন্দোলনকারীরা আরো জানায়, স্মারকলিপি প্রদানের পরেও ২ নভেম্বর কেয়ারটেকার পদের নিয়োগ বোর্ড রাখায় তারা ভাইস-চ্যান্সেলরের কার্যালয় তালাবদ্ধ করে।

এ বিষয়ে আন্দোলনকারী ও তৃতীয় শ্রেণি কর্মচারী সমিতির সভাপতি এস.এম মাহফুজুর রহমান বলেন, তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী সমিতির (মাভাবিপ্রবিতৃকস) কার্যকরী পরিষদ ৩৯তম সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত তৃতীয় শ্রেণির সকল সদস্য কর্মবিরতি পালন করবে। তবে অ্যাম্বুলেন্স, ছাত্র-ছাত্রী সংশ্লিষ্ট এবং জরুরি সেবা সমূহ চালু থাকবে। এছাড়া অন্যান্য সকল পরিবহন সেবা বন্ধ থাকবে। 

তিনি আরো জানান, আমাদের তৃতীয় শ্রেণির আন্দোলনের সাথে ৪র্থ শ্রেণি কর্মচারী সমিতিও একাত্মতা প্রকাশ করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর, ট্রেজারার, অভ্যন্তরীণ রিজেন্ট বোর্ড সদস্য, ডিন, বিভাগীয় চেয়ারম্যান, সিনিয়র শিক্ষক আন্দোলনকারীদের সাথে দফায় দফায় আলোচনা করলেও সমস্যার সমাধান না হওয়ায় ভাইস-চ্যান্সেলর তালাবদ্ধ অবস্থায় রয়েছে বলে জানা যায়।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2023 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //