গরুর হাটে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির অভিযোগ

রাত পোহালেই পবিত্র ঈদুল আজহা। ঈদকে কেন্দ্র করে রাজধানীর পশুর হাটগুলো সরগরম হয়ে উঠলেও শেষ দিনে ফাঁকা হতে শুরু করেছে। আজ রবিবার (১৬ জুন) বিকেল থেকে রাজধানীর হাটগুলোতে হঠাৎ যেন পশু উধাও। গাবতলী ছাড়া প্রায় সব অস্থায়ী হাটের চেহারাই প্রায় একই রকম।

বিকেল থেকে ক্রেতাও কমেছে এসব হাটে। অস্থায়ী হাটগুলোতে নতুন করে কোনো পশুও আসছে না। 

এদিন দুপুর পর্যন্তও যথেষ্ট পশু সরবরাহ ছিল। সন্ধ্যার পর বেশিরভাগ হাটে বড় গরু বেশি দেখা যায়। কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির অভিযোগ করেছেন ক্রেতারা। 

সোমবার ঈদের দিনেও হাটে বেচাকেনা চলবে। এই সময়ের মধ্যে সব পশুই বিক্রি হয়ে যাবে বলে আশা বিক্রেতাদের। তারা বলছেন, এবার ছোট ও মাঝারি আকারের গরুর চাহিদাই বেশি ছিল।

এদিকে,  হাটে ছোট বা মাঝারি আকারের গরুগুলো বিক্রি হলেও শেষ সময়ে খদ্দেরের দেখা পাচ্ছেন না বড় গরুর মালিকরা।

আজ রবিবার (১৬ জুন) মোহাম্মদপুর বেড়িবাঁধ মোড় হাটে সরেজমিন দেখা যায়, অধিকাংশ পশু বিক্রি হয়ে গেছে। যেসব গরু এখনো বিক্রি হয়নি, সেগুলো বিক্রির অপেক্ষায় আছেন ব্যাপারীরা। অনেকে আবার কমিয়ে দিয়েছেন দামও।

কুষ্টিয়া থেকে ১০টি গরু হাটে তুলেছিলেন ব্যাপারী রহিম শেখ। তিনি বলেন, আমার এখনো ৩টা গরু বাকি আছে। কিছুটা লসে হলেও বিক্রি করে দিতে চাচ্ছি।

আরেক ব্যবসায়ী ২টি গরু নিয়ে ক্রেতার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। তিনি বলেন, যে রেট দিছিলাম, তার চাইতে কমায়া দিচ্ছি। তারপরও চাইতেছি গরু বিক্রি হয়ে যাক।

তবে চিন্তায় পড়েছেন আরেক বিক্রেতা শাহীন মিয়া। তার ফ্রিজিয়ান জাতের বিশাল আকারের গরুটি এখনো বিক্রি করতে পারেননি। তিনি বলেন, দাম চেয়েছিলাম সাড়ে ৪ লাখ। পরে ৪ লাখে দাম নামিয়েছি, কিন্তু এখনো গরুটি বিক্রি করতে পারিনি। বিক্রি করতে পারব কি না সে চিন্তায় আছি।

তিনি বলেন, আমার অন্যান্য গরুগুলো বিক্রি হয়ে গেছে। কিন্তু এই বড়টা এখনো বিক্রি হচ্ছে না। এটাকে বাড়ি ফিরিয়ে নিয়ে বিক্রি করতে হলে বিপদের মুখে পড়তে হবে। তাই চাচ্ছি হাটেই বিক্রি হয়ে যাক।

হাটে আসা ক্রেতারাও কম দামের মধ্যে গরু খুঁজছেন। ক্রেতা শাহরিয়ার বলেন, শেষ সময়ে তো কম দামে গরু মিলে যায়। বাজেটে মিলে গেলে কিনে নেব।

৭৫ হাজারে গরু কিনে বাড়ি ফিরছিলেন এনামুল হোসেন। তিনি বলেন, গরু দাম চাচ্ছিল ৯০ হাজার টাকা। পরে দামাদামি করে ৭৫ এ নিয়ে নিলাম।

অন্যদিকে ছাগলের দামও কমিয়ে দিয়ে বিক্রি করতে চাইছেন বিক্রেতারা। দুটো ছাগল নিয়ে ক্রেতার অপেক্ষা করছিলেন বিক্রেতা মজিবুর। তিনি বলেন, ১২ হাজারে পেলেই ছাগল বিক্রি করে দিব।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2024 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //