স্নায়ুক্ষয়ী ম্যাচে বরিশালের হার, শীর্ষে সিলেট

আজ মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) মিরপুরে শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে ফরচুন বরিশালকে রানে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান ধরে রাখলো সিলেট।

পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান দখলে সিলেট-বরিশালের ম্যাচটির লড়াই ছিল পেন্ডুলামের মতো। তবে স্নায়ুর চাপ ধরে রেখে শেষ হাসি হেসেছে মাশরাফি বিন মর্তুজার সিলেট স্ট্রাইকার্স।

১৪তম ওভারে বড় ধাক্কা খায় বরিশাল। রেজাউর রহমান রাজা একই ওভারে ফেরান দুই সেট ব্যাটার ইব্রাহিম জাদরান এবং সাকিব আল হাসানকে। রাজাকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে দুজনেই ক্লিন বোল্ড হন। রাজার ওই ওভারে ম্যাচ জেতার সম্ভাবনা বাড়ে সিলেটের। তবে ১৬তম ওভারে ম্যাচ আবারো অনুকূলে আসে বরিশাল। সিলেট অধিনায়ক মাশরাফির শেষ তিন বলে তিন ছক্কা হাঁকিয়ে ম্যাচ নিজেদের দখলে আনেন করিম জানাত।

তবে পরের ওভারে ম্যাচ আবারো সিলেটের দিকে ঝুলে পড়ে। মোহাম্মদ আমির ওই ওভারে দেন মাত্র ১ রান। আর শেষ বলে তো তুলে নেন সেই করিম জানাতের উইকেট। ম্যাচ জিততে বরিশালকে করতে হতো ১৩ রান। তখন ম্যাচ জয়ের সুযোগ না থাকলেও টাই করে সুপার ওভারে নিতে পারতো বরিশাল। রাজার পঞ্চম বলে ছক্কা হাঁকিয়ে সেই সম্ভাবনা জাগান মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র। তবে রাজার করা শেষ বলে চারের বেশি রান নিতে না পাড়ায় ম্যাচ জিতে নেয় সিলেট।

মিরপুরের শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে সিলেটকে হারিয়ে চলমান বিপিএলের পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে নাম লেখতে বরিশালের দরকার ছিল ১৭৪ রান। ওপেনার সাইফ হাসান ঝড় তোলেন ম্যাচে। কোনো চারের মার না থাকলেও, ৪ ছক্কায় ৩১ রান করেন তিনি। তানজিম হাসান সাকিবের বলে ফেরার আগে ১৯ বলে ১৬৩ স্ট্রাইকরেটে এই রান করেন সাইফ।

দলীয় ৪২ রানে প্রথম উইকেট হারানো বরিশাল পাওয়ারপ্লেতে উইকেট হারায় আরও একটি। বরিশালের শেষ বলে সেই তানজিমের ফুলটাস উড়িয়ে দিতে গিয়ে নাজমুল হোসেন শান্তর দুরন্ত এক ক্যাচের শিকার হন এনামুল হক বিজয়। এরপর ইব্রাহিম জাদরানকে নিয়ে বরিশালকে জয়ের পথে নিয়ে যেতে থাকেন সাকিব। তবে রাজার ওই ওভার ম্যাচের দৃশ্যপট ঘুরিয়ে দেয়। জাদরান ফেরেন ৪২ রান করে। সাকিবের ব্যাট থেকে আসে ২৯ রান।

শেষমেষ করিম জানাতের ২১, ইফতিখার আহমেদের ১৭ এবং মোহাম্মদ ওয়াসিমের ১০ রান ম্যাচ জমিয়ে তুললেও বরিশালকে কাঙ্ক্ষিত জয় এনে দিতে পারেননি। রাজা শেষ ওভারে ইফতিখারকে ফেরানোসহ নিয়েছেন ৩ উইকেট। আমিরও দারুণ বোলিং করেছেন। শেষ দুই ওভারে মাত্র ৯ রানে ২ উইকেট নেন তিনি।

এর আগে ব্যাট করতে নেমে মোহাম্মদ ওয়াসিমের কাছে ১৫ রানেই ৩ উইকেট হারায় সিলেট। গোল্ডেন ডাকে সাজঘরে ফেরেন জাকির হাসান এবং মুশফিকুর রহিম। চোট কাটিয়ে একাদশে ফেরা তৌহিদ হৃদয় মাত্র ৪ রান করে আউট হয়ে যান।

আরেক ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্ত এবং ইংলিশ ব্যাটার টম মুরস। দুইজন মিলে ৮১ রানের জুটি গড়েন। ৩০ বলে ৪০ রান করে সাকিব আল হাসানের বলে আউট হয়ে যান মুরস। এরপর ৬৮ রানের জুটি বাধেন শান্ত- থিসারা পেরেরা। পেরেরা ১৬ বলে করেন ২১ রান। ইমাদ ওয়াসিম উইকেটে নেমে ৫ রান করে আহত হয়ে মাঠ ছাড়েন। ৬৬ বলে ৮৯ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলে অপরাজিত থেকে যান শান্ত। ১১টি বাউন্ডারির সাথে ১টি ছক্কার মার ছিলো তার ব্যাটে।

বরিশালের হয়ে ৩ উইকেট নেন মোহাম্মদ ওয়াসিম। একটি করে উইকেট পকেটে পোরেন সাকিব আল হাসান ও কামরুল ইসলাম রাব্বি।


সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2023 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //