রাজস্থানকে হারিয়ে ফাইনালে হায়দরাবাদ

চলমান আইপিএলের লিগ পর্বের প্রথম নয় ম্যাচের মধ্যে আটটিতে জয় তুলে নিয়ে চমক দেখিয়েছিলো রাজস্থান। তবে পরের পাঁচ ম্যাচের চারটিতে হেরে ছন্দ হারায় দলটি। এরপর লড়াই করে বেঙ্গালুরুকে হারিয়ে দ্বিতীয় কোয়ালিফাইয়ার নিশ্চিত করেছিলো তারা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ফাইনালে উঠা হলো না রাজস্থান। দ্বিতীয় কোয়ালিফাইয়ার ম্যাচে স্যামসনদের ৩৬ রানে হারিয়েছে হায়দরাবাদ।

গতকাল শুক্রবার (২৪ মে) আগে ব্যাট করে রাজস্থানকে ১৭৬ রানের লক্ষ্য দিয়েছিলো হায়দরাবাদ। জবাব দিতে নেমে নির্ধারিত ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৩৯ রান অলআউট রাজস্থান। এতে ৩৬ রানের জয় পায় হায়দরাবাদ। এতে ফাইনালের কলকাতার সঙ্গী হিসেবে নাম লেখায় হায়দরাবাদ।

চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে হায়দরাবাদের বোলাদের ভালো করেই খেলতে থাকে রাজস্থানের দুই ওপেনার। তবে চতুর্থ ওভারে টম কোহলের-ক্যাডমোরকে আউট করেন কামিন্স। অপর প্রান্ত থেকে ব্যাট চালাতে থাকেন যশস্বী জয়সওয়াল।

অষ্টম ওভারে জয়সওয়ালকে সাজঘরে ফেরান শাহবাজ আহমেদ। ২১ বলে ৪২ রানের ইনিংস খেলেন এই বাঁহাতি ওপেনার। পরের ওভারে ১১ বলে ১০ রান করে বাউন্ডারি লাইনে কাটা পড়েন অধিনায়ক স্যামসন।

এরপর রিয়ান পরাগ (৬), অশ্বিন (০) এবং হেটমাইয়ার ৪ রানে আউট হলে বিপাকে পড়ে রাজস্থান। তবে রোভমেন পাওয়েলকে সঙ্গে নিয়ে রাজস্থান শিবিরে হাল ধরেন ধ্রুব জুড়েল। কিন্তু ১২ বলে ৬ রান করে আউট হন পাওয়েল।

ফাইনালের টিকিট পেতে শেষ ১২ বলে রাজস্থানের লক্ষ্য দাঁড়ায় ৫২ রান। মারকুটে ব্যাটিংয়ে ২৬ বলে ফিফটি তুলে নেন জুড়েল। ৩৫ বলে ৫৬ রান করে জুড়েল অপরাজিত থাকলেও শেষ রক্ষা হয়নি রাজস্থানের। নির্ধারিত ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৩৯ রান তুলতে পারে তারা। এতে ৩৬ রানের জয় পায় হায়দরাবাদ।

হায়দরাবাদের হয়ে সর্বোচ্চ তিন উইকেট শিকার করেন শাহবাজ আহমেদ। এ ছাড়াও অভিষেক শর্মা দুটি, প্যাট কামিন্স এবং টি নাতারাজান একটি করে উইকেট নেন।

এর আগে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি হায়দরাবাদের। ৫ বলে ১২ রান করে শুরুতেই সাজঘরে ফেরেন ওপেনার অভিষেক শর্মা। তৃতীয় উইকেটে ব্যাটিংয়ে এসে দ্রুত রান তুলতে থাকেন রাহুল থ্রিপাঠী।

তবে ১৫ বলে ৩৭ রান করে আউট হন তিনি। দুই বল পরেই ক্যাচ আউট হন এইডেন মারক্রাম। কিন্তু এক প্রান্ত আগলে রেখে রান ‍তুলতে থাকেন আরেক ওপেনার ট্রাভিস হেড। তাকে সঙ্গ দেন হেইনরিচ ক্লাসেন। তবে ইনিংস লম্বা করতে পারেননি হেড। ২৮ বলে ৩৪ রান করে আউট হন এই অজি ব্যাটার।

এরপর ১৪তম ওভারে ১০ বলে ৫ রান করে নিতিশ কুমার আউট হলে, পরের বলেই বোল্ড আউট হন সামাদ। তবে এক প্রান্ত আগলে রেখে হায়দরাবাদকে এগিয়ে নেওয়া চেষ্টা করতে থাকেন ক্লাসেন। ৩৩ বলে ফিফটি তুলে নেন এই প্রোটিয়া ব্যাটার। তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন ইমপ্যাক্ট সাবে খেলতে নামা শাহবাজ আহমেদ।

ক্লাসেন (৫০) এবং ১৮ রান করে আউট হন শাহবাজ। শেষ পর্যন্ত প্যাট কামিন্সের ৫ বলে ৫ রান এবং জয়দেভ উনাদকাটের ২ বলের ৫ রানে ভর করে নয় উইকেট হারিয়ে ১৭৫ রানের লড়াকু পুঁজি পায় হায়দরাবাদ।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2024 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //