‘সর্বশেষ’ পেস তারকা জেমস অ্যান্ডারসনের বিদায়

একজন পেস বোলারের জন্য ক্যারিয়ার লম্বা করা বেশ কঠিন কাজ। ফর্ম ধরে রাখার পাশাপাশি বড় একটা সময় কাটাতে হয় ইনজুরির সঙ্গে যুদ্ধ করে। অনেকেই সেই লড়াই থেকে ছিটকে যান অমিত সম্ভাবনা থাকার পরও। এই অবস্থার মধ্যেও দীর্ঘ ক্যারিয়ার গড়েছেন জেমস অ্যান্ডারসন নামের একজন পেসার। ৪১ বছর বয়স হলেও থামানোর ইচ্ছা ছিল না, তবে এবার থামতে হচ্ছে। 

ইংল্যান্ডের হয়ে ঝলমলে ক্যারিয়ার তার। পারফরম্যান্স দিয়েই নিজেকে নিয়ে গেছেন কিংবদন্তিদের কাতারে। তাকে সর্বশেষ পেস বোলারদের মধ্যে তারকা হিসেবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে। ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম ও একমাত্র পেসার হিসেবে টেস্টে ৭০০ উইকেট নেওয়া অ্যান্ডারসন থাকবেন ক্রিকেটপ্রেমীদের হৃদয়ের মণিকোঠায়। ইংল্যান্ডের গ্রীষ্মকালীন মৌসুম শেষেই ক্যারিয়ার শেষ করবেন এই পেসার। অ্যান্ডারসনের অবসরের পেছনে ভূমিকা রেখেছেন ইংল্যান্ড কোচ ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। কোচের সঙ্গে আলোচনার পরই অবসরের মতো কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জিমি। 

যদিও তাকে বোর্ড থেকে খেলা ছাড়ার ব্যাপারে কোনো চাপ প্রয়োগ করা হয়নি। মূলত ২০২৫-২৬ অ্যাশেজের জন্য ইংলিশ পেস বিভাগকে নতুনভাবে তৈরি করতে চাইছে। সে সময় ৪৩ বছর বয়স হয়ে যাবে অ্যান্ডারসনের। যে বয়সে ফিট ও পারফরমার এক্সপ্রেস জিমিকে পাওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। চলতি গ্রীষ্মে এফটিপি অনুসারে ছয়টি টেস্ট খেলবে ইংলিশরা। এর মধ্যে ১০ জুলাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে লর্ডস টেস্ট খেলে অ্যান্ডারসন ইতি টানবেন ২২ বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ারের। ভারত সফরে ইতিহাসের তৃতীয় বোলার ও প্রথম পেসার হিসেবে টেস্টে ৭০০ উইকেট নেন অ্যান্ডারসন। যদিও টেস্টে সর্বোচ্চ উইকেট-শিকারির তালিকায় অ্যান্ডারসনের ওপরে আরও দুজন রয়েছেন। ৮০০ উইকেট নিয়ে সবার ওপর আছেন লঙ্কান কিংবদন্তি মুত্তিয়া মুরালিধরন। ৭০৮ উইকেট নিয়ে এরপরই দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন অস্ট্রেলীয় গ্রেট শেন ওয়ার্ন।

‘সুইং মাস্টারের’ও কয়েক বছর ধরে অবসরের গুঞ্জন চলছিল। নিজের অবসর নিয়ে ইনস্টাগ্রামে পোস্টে অ্যান্ডারসন লিখেছেন, ‘এখন শুধু একটি কথাই বলে রাখি, লর্ডসে গ্রীষ্মের প্রথম টেস্টই আমার শেষ টেস্ট। দেশের প্রতিনিধিত্ব করে অসাধারণ ২২ বছর কাটিয়েছি।’ 

২০০৩ সালের মে মাসে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট অভিষেক হওয়ার পর থেকে সাদা পোশাকে হয়ে ওঠেন ইংলিশদের অন্যতম অস্ত্র। ১৮৭টি টেস্টে ইনিংসে ৫ উইকেট নিয়েছেন ৩২ বার। দুই ইনিংস মিলিয়ে ম্যাচে ১০ উইকেট নিয়েছেন মোট তিন বার। এক ইনিংসে সেরা বোলিং পারফরম্যান্স ছিল ৪২ রানে ৭ উইকেট। দুই ইনিংস মিলিয়ে এক ম্যাচে সেরা বোলিং পারফর্ম্যান্স ৭১ রানে ১১ উইকেট। এ ছাড়া ইংল্যান্ডের হয়ে ১৯৪টি ওয়ানডেতে ২৬৯টি উইকেট নিয়েছেন তিনি। ১৯টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ১৮ উইকেট দখল করেছেন। তবে জেমস অ্যান্ডারসনকে মানুষ মনে রাখবে সাদা বলের টেস্ট ক্রিকেটে।

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2024 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //