পাবনায় চাঁদাবাজি-মারধরের অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা আটক

ছবি: পাবনা প্রতিনিধি

ছবি: পাবনা প্রতিনিধি

পাবনার সাঁথিয়া উপজেলায় সরকারি উন্নয়ন কাজে বাধা প্রদান এবং ঠিকাদারকে মারপিট ও চাঁদাবাজির অভিযোগে সাঁথিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হাসিবুল খান ছানাকে আটক করেছে পুলিশ। 

গতকাল শনিবার (২৯ আগস্ট) বিকেলে সাঁথিয়া থেকে তাকে আটক করা হয়।

এ বিষয়ে সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ঢাকার একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এমএম বিল্ডার্স এন্ড কনসট্র্কসনস লিমিটেড সাথিয়া বাইপাস সড়ক নির্মাণ করছে। এরই জের ধরে ওই ঠিকাদারের নিকট উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হাসিবুল বেশ কিছু দিন ধরে কাজ বন্ধ করে দেয়াসহ বিভিন্ন সরকারের উন্নয়ন কাজে বাধা প্রদান করে আসছিল। এরই জের ধরে শনিবার বিকেলে এমএম বিল্ডার্স লিমিটেডের প্রজেক্ট ম্যানেজার প্রল্লাদ কুমারকে মারধর করেন। পরে পুলিশ খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই ছাত্রলীগ নেতাকে আটক করেন।

এই ঘটনার প্রত্যক্ষদশীরা জানান, বেলা ৩টার দিকে সাঁথিয়া বাইপাস সড়কে কাজ করছিল কিছু শ্রমিক। এ সময় হাসিবুল তার দলবল সাথে নিয়ে এসে শ্রমিকদের ও প্রজেক্ট ম্যানেজারকে বেধড়ক মারধর করে। এ সময় শ্রমিকরা ছুটাছুটি করে পালিয়ে যায়। এ সময় ওই ছাত্রলীগ নেতা ১০ লাখ টাকা না দিলে কাজ করতে পারবেন না বলেও গালিগালাজ করতে থাকে। পরে কয়েকজন শ্রমিক পাশে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সম্পাদক মেহেদী হাসানকে অবহিত করলে তিনি ৯৯৯ এ ফোন দেয়ার পরামশ দেন। পরে তারা ৯৯৯ এ ফোন দিলে পুলিশ তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে আটক করেন।

এ বিষয়ে জেলা মেহেদী হাসান বলেন, হাসিবুল সাঁথিয়ায় ছাত্রলীগের মানসম্মান ধুলিস্যাৎ করে দিয়েছে। তার বিরুদ্ধে কেউ কথা বলার সাহসও পায় না। তার আচরণ আর গুন্ডামিতে অতিষ্ঠ পুরো এলাকাবাসী। এর আগে সাঁথিয়ার রুবিয়া ক্লিনিকে লাশ ঠেকায়ে রেখে ছয় লাখ টাকা আদায় করা, মাদক সেবন ও ব্যবসা, ডানা মাছগ্রামে জমি দখল করাসহ নারী নিযাতনের অভিযোগ রয়েছে। কে বলবেন কার কথা- হাসিবুলকে দিয়ে আমাদের বড় বড় নেতারাও প্রতিপক্ষকে মারপিট ও তাদের গাড়ি ভাংচুর করার রেওয়াজ আছে। থানায় খুঁজলে তার বিরুদ্ধে প্রায় দেড় ডজন অভিযোগ পাওয়া যাবে। শুধুমাত্র ছাত্রলীগ নেতা বলে ওইসব অভিযোগ খারিজ করে দেয়া হয়। সত্যিই বিষয়টি অত্যন্ত কষ্টের। এর নিরসন হওয়া দরকার বলে আমি একজন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা হিসেবে মনে করি।

এমএম বিল্ডাস এন্ড কনসট্র্কসনস লিমিটেডের প্রজেক্ট ম্যানেজার প্রল্লাদ কুমার ঘটনার বিস্তারিত একটু পরে বলবেন বলে জানান। তিনি থানায় এই বিষয়ে এজহার লেখা নিয়ে ব্যস্ত আছেন।

উপজেলা ছাত্রলীগের এই নেতা ছানার বিরুদ্ধে এছাড়াও বিভিন্ন অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে। তার বিরুদ্ধে নারী নিযাতন থেকে শুরু করে জবরদখর, চাদাবাজী, সন্ত্রাসীসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে বলেও জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা। 

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //