ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আমাদের কেউ হামলা চালায়নি : হেফাজত

ছবি: ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ছবি: ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধীতা করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলামের কোনো নেতা-কর্মী তাণ্ডব চালায়নি বলে দাবি করেছেন সংগঠনটি। 

আজ সোমবার (৫ এপ্রিল) দুপুরে ক্ষতিগ্রস্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে হেফাজতের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির মাওলানা সাজিদুর রহমান এ দাবি করেন।

হেফাজতে ইসলাম ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসার প্রতিনিধি দল ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব পরিদর্শনে আসেন। এ সময় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাবেদ রহিম বিজন ক্লাবে ভাঙচুরের বর্ণনা দেন। এরপর ক্লাবের সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামি তার ওপর চালানো হামলার বিষয়টি হেফাজত ও মাদ্রাসা নেতাদের কাছে তুলে ধরেন।

তাণ্ডবের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে হেফাজতের নায়েবে আমির বলেন, আমরা দুঃখিত। ভাঙচুরের জন্য আমাদের কর্মসূচিটাই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এজন্য দোষীদেরকে চিহ্নিত করে তাদের বিচারের দাবি জানাই। কিন্তু কোনো নিরপরাধ ব্যক্তিকে যেন হয়রানি না করা হয়, আপনাদের (সাংবাদিক) মাধ্যমে আমরা প্রশাসনের কাছে সেই দাবি জানাই।

তিনি বলেন, হরতালের দিন আমাদের নেতাদের অবস্থান শুধু মাদ্রাসার সামনে ছিল। যারা এ ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটিয়েছে, ভিডিও ফুটেজ দেখে প্রকৃত দোষীদেরকে বের করে শাস্তির দাবি জানানচ্ছি। যারা সন্ত্রাসী কার্যকলাপ-ভাঙচুর করে, তারা কোনোদিন হেফাজতে হতে পারে না। আমরা সব ভাঙচুরের প্রতিবাদ জানাই। এর সাথে যারা হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে ও যারা উস্কানিদাতা তাদেরকেও চিহ্নিত করা দরকার।

জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মুফতি মুবারক উল্লাহ বলেন, আমার যতটুকু বিশ্বাস, আমাদের কোনো মানুষ এই তাণ্ডব চালায়নি। যারা এমন ন্যাক্কারজনক কাজ করেছে, সেটি তদন্তের মাধ্যমে বের করে ব্যবস্থা নেয়া উচিত। এই ঘৃণ্য কাজের জন্য আমরা এর নিন্দা জানাই।

এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- আলী আজম, বোরহার উদ্দিন কাসেমী, নোমান হাবিবী, এনামুল হাসান, মো. জাকারিয়া, তানভীর আহমেদ ও এরশাদুল্লাহ কাসেমী প্রমুখ।

উল্লেখ্য, মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধীতা করে গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরকারি-বেসরকারি বেশ কয়েকটি স্থাপনায় হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে হেফাজতে ইসলামের কর্মী-সমর্থকরা। তারা ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবেও ভাঙচুর ও ক্লাবের সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামির ওপর হামলা চালায়।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh