লক্ষ্মীপুরে ইটভাটার ৩ শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনায় মামলা

লক্ষ্মীপুর জেলা কারাগার।

লক্ষ্মীপুর জেলা কারাগার।

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে অবৈধ ইটভাটার চিমনি ধসে দুই ভাইসহ তিন শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার (২৪ মে) ভোররাতে রামগঞ্জ পৌরসভার স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ নেতা দেলোয়ার হোসেন ওরফে এসপি দেলুর ব্যক্তিগত কার্যালয় থেকে আমির হোসেন ডিপজল ও স্বপনকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার ডিফজল উপজেলার ভোলাকোট ইউনিয়নের দেহলা গ্রামের মদিনা ব্রিকসের মালিক ও স্বপন মিয়া ওই ব্রিকসের ব্যবস্থাপক (ম্যানেজার)।

তাদেরকে সোমবার (২৪ মে) বিকেলে লক্ষ্মীপুর আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

এর আগে সকালে নিহত বেলাল ও ফারুকের ভাই হেলাল হোসেন বাদী হয়ে রামগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। সন্ধ্যায় রামগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) কার্তিক চন্দ্র বিশ্বাস গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

পুলিশ ও নিহতদের পরিবার সূত্র জানায়, কাউন্সিলর দেলোয়ারের ব্যক্তিগত কার্যালয়ে নিহত শ্রমিকদের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে রবিবার গভীর রাতে সমঝোতার বৈঠক বসানো হয়। সেখানে ভাটার মালিক ডিপজল ও ম্যানেজার স্বপনসহ কয়েকজন উপস্থিত ছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে ডিপজল ও স্বপনকে আটক করে। সকালে মামলার পর তাদের ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

মামলার বাদী কমলনগর উপজেলার বাসিন্দা হেলাল হোসেন জানান, সমঝোতার বৈঠক ডেকে কাউন্সিলর দেলুসহ কয়েকজন জোর করে তাদের আত্মীয়-স্বজনদের মুচলেকা নিয়েছেন। সেখানে দুই ভাইয়ের মৃত্যুর ঘটনায় ২ লাখ ও দাফনের জন্য ৪০ হাজার টাকা দিয়ে তাদের বের করে দেয়া হয়। এ সময় বাড়াবাড়ি করলে পরিণতি ভালো হবে না বলে হুমকিও দেয়া হয়।

নিহত অপরজনের নাম রাকিব হোসেন। নিহতরা জেলার কমলনগর উপজেলার বাসিন্দা।

হেলাল অভিযোগ করে আরো জানান, ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রভাবিত করতে ভাটা মালিকের সঙ্গে ৭ লাখ টাকায় দফারফা করা হয়। বৈঠক শেষ হওয়ার আগেই তাদের কাউন্সিলরের কার্যালয় থেকে জোর করে বের করে দেয়া হয়েছে।

অভিযোগ অস্বীকার করে কাউন্সিলর দেলোয়ার হোসেন বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সত্য নয়। ডিপজলের স্ত্রী লোকজন নিয়ে আমার কাছে এসেছে। আমি ঘটনাটি মীমাংসা করার চেষ্টা করেছি। কাউকে কোনো হুমকি দেয়া হয়নি।

এ ব্যাপারে রামগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) কার্তিক চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। আটক দুইজনকে ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত চলছে।

রামগঞ্জ উপজেলার ভোলাকোট ইউনিয়নের দেহলা গ্রামে রবিবার (২৩ মে) মদিনা ব্রিকসের চিমনির দেয়াল ধসে দুই ভাইসহ ৩ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। লক্ষ্মীপুর সদর ও রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন আরো ৮ শ্রমিক।

বিষয় : লক্ষ্মীপুর

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh