ওসির নম্বর ক্লোন করে টাকা আদায়

চরজব্বার থানা। ছবি: সংগৃহীত

চরজব্বার থানা। ছবি: সংগৃহীত

নোয়াখালীর সুবর্ণচরের চরজব্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জিয়াউল হকের সরকারি মোবাইল নম্বর ক্লোন করে এক ইউপি চেয়ারম্যানের কাছ থেকে প্রতারক চক্র হাতিয়ে নিয়েছে চার লাখ টাকা।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী উপজেলার ৪নং চরওয়াপদা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মনির আহমেদ (৬৪) চরজব্বার থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন।

বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরওয়াপদা ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। 

পুলিশ জানায়, উপজেলার চরওয়াপদা ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান মো. মনির আহমেদের ব্যক্তিগত ফোনে দুটি নম্বর থেকে কল আসে। তিনি আসন্ন ইউপি নির্বাচনের চেয়ারম্যান প্রার্থী। এসময় কলদাতা নিজেকে অফিসার ইনচার্জ চরজব্বার থানা পরিচয় দিয়ে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে প্রভাবিত করার জন্য বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাদেরকে ম্যানেজ করার উদ্দেশ্যে টাকা চায়। 

এরপর তিনি সাথে থাকা আরেক ব্যক্তিকে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নোয়াখালী পরিচয় দিয়ে চার লাখ টাকা পাঠানোর কথা বলেন। 

ভুক্তভোগী জানান, বিচারক তার নম্বর (০১৩০৪-৯৪৪৪৬৮) থেকে আমাকে ফোন দিয়ে ছয়টি নম্বর দেয় (০১৭৩৩-৮১৬৯৬৪, ০১৭৬১-১০৬৩৭৩, ০১৭৯৭-৬০৪৫১৮, ০১৩২২-৬৫৯৪৩৫, ০১৮৬৩-৬৬৭০৪৬ ও ০১৮৭১-৬৯৫০৩৮)। আমাকে প্রতিটি নম্বরে ৫০ হাজার টাকা করে পাঠাতে বললে আমি সরল মনে তিন লাখ টাকা পাঠাই। এরপর আবার ০১৩২০-৮৩৬৭৫৮ ও ০১৮৭১-৬৯৫৮৪১ নম্বরে এক লাখ টাকা পাঠাতে বললে আমি সে টাকা পাঠিয়ে দেই। তারপর ওসি ফোন দিয়ে রাত ৯টায় আমাকে থানায় আসতে বলেন। আমি থানায় গিয়ে বুঝতে পারি প্রতারণার শিকার হয়েছি। এরপর থানায় একটি ডায়েরি করি। 

চরজব্বার থানার ওসি মো. জিয়াউল হক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আজ দিনের বিভিন্ন সময় আমার ব্যবহৃত সরকারি মোবাইল নম্বরটি (০১৩২০১১১১৬৩) ক্লোন করে একাধিক ব্যক্তিকে বিভিন্নভাবে প্রতারিত করার খবর ভুক্তভোগী কয়েকজন সরাসরি থানায় এসে জানিয়েছে। 

তিনি আরো জানান, এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। তিনি সবাইকে সতর্ক থাকারও আহ্বান জানান।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //