স্ত্রীর যৌতুক মামলায় কারাগারে পুলিশ সদস্য

সফিকুল ইসলাম সরকার। ছবি: সংগৃহীত

সফিকুল ইসলাম সরকার। ছবি: সংগৃহীত

গাজীপুরে স্ত্রীর দায়ের করা যৌতুক মামলায় জামিন নিতে এসেছিলেন পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) সফিকুল ইসলাম সরকার (৪৪)। তবে জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

রবিবার (৩১ অক্টোবর) গাজীপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা ফারুখ এই আদেশ দেন।

সফিকুল ইসলাম নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলার লেবুতলাচর হাজী খাঁ গ্রামের সিরাজুল ইসলাম সরকারের ছেলে। মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনে (পিবিআই) কর্মরত তিনি।

বাদীপক্ষের আইনজীবী তোফাজ্জল হোসাইন জানান, মামলার বাদী সফিকুলের স্ত্রী গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার টোক ইউনিয়নের পাচুয়া গ্রামের নুরুন নাহার সুলতানা (৩৯)। সফিকুল ২০০১ সালে তাদের বিয়ে হয়। এক মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে। মেয়ে এইচএসসি পরীক্ষার্থী এবং ছেলে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ে।

সফিকুল ইসলাম গত তিন বছর আগে বাড়ি নির্মাণের জন্য স্ত্রীর কাছে যৌতুক দাবি করে আসছিলেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ দেখা দিলে ২০২০ সালের ১৪ ডিসেম্বর স্বামীর বিরুদ্ধে গাজীপুর আদালতে একটি মামলা করেন সুলতানা। পরবর্তীতে সমঝোতার শর্তে ওই মামলা প্রত্যাহারে বাদীকে বাধ্য করেন সফিকুল।

সুলতানা জানান, মামলা প্রত্যাহার করে নেওয়ার পর আবারও যৌতুক দাবি করে তার ওপর চাপ সৃষ্টি করতে থাকেন। এ ঘটনায় পুনরায় চলতি বছরের ১৮ জুলাই গাজীপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এজাহার করেন সুলতানা। আদালত আমলে নিয়ে সমন জারি করেন। 

অভিযুক্ত ধার্য তারিখে আদালতে উপস্থিত না হওয়ায় সফিকুলের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

রবিবার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা ফারুখের আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে সফিকুলকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

বাদী জানান, সফিকুল ইসলাম গত জানুয়ারি গোপনে আরেকটি বিয়ে করেছেন। ওই স্ত্রীকে নিয়ে তিনি কর্মস্থল এলাকায় বসবাস করেন। আর যৌতুকের জন্য সুলতানাকে বারবার চাপ দিচ্ছেন। তাই বাধ্য হয়ে আদালতে মামলা করেছেন।

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2021 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //