সংঘর্ষে হেলে পড়া জাহাজ টেনে আনা হলো জেটিতে

গত ১৪ এপ্রিল চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙ্গরে ভিয়েতনামের পতাকাবাহী এমভি হাইয়ান সিটি ও এমভি ওরিয়ন এক্সপ্রেসের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত হয় জাহাজ এমভি হাইয়ান সিটি। জাহাজটি আজ বুধবার (৪ মে) কর্ণফুলী ড্রাই ডক জেটিতে আনা হয়েছে।

বন্দরের টাগবোট, দুটি বিশেষায়িত পলিউশন কন্ট্রোল জাহাজ ছাড়াও প্রান্তিক বেঙ্গল সেলভেজ অ্যান্ড ডাইভিং সার্ভিসের টাগবোট ব্যবহার করে এমভি হাইয়ান সিটি জাহাজটি নিরাপদে বার্থিং করা হয়। বন্দরের সচিব ওমর ফারুক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বন্দর সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রাম বন্দর ত্যাগ করার পর কুতুবদিয়ার কাছাকাছি এলাকায় হাইয়ান সিটি ও ওরিয়ন এক্সপ্রেসের সংঘর্ষ হয়। এতে হাইয়ান সিটি জাহাজটির কার্গো হোল্ডে ছিদ্র হয়ে পানি প্রবেশ করে। যার কারণে জাহাজটি সাত ডিগ্রি হেলে পড়ে। কার্গো হোল্ডে পানি প্রবেশের কারণে ড্রাফট বেড়ে ১০ দশমিক ৭ মিটার হয়ে যায়। ফলে  জাহাজটি ডুবে যাওয়ার উপক্রম হয়। সংঘর্ষের পর জাহাজটি কুতুবদিয়া এলাকায় নোঙ্গর করা হয়।

এমভি হাইয়ান সিটি জাহাজে ১১৫৬ টিইইউস জরুরি রপ্তানিবাহী কন্টেইনার ছিল। যার রপ্তানি মূল্য প্রায় ৮০০ কোটি টাকা।

চট্টগ্রাম বন্দরের সচিব ওমর ফারুক বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত জাহাজটি মেরামতের জন্য বোঝাই করা কন্টেইনার খালাস করা আবশ্যক হয়ে পড়ে। ডুবে যাওয়ার ঝুঁকি থাকায় জাহাজটিকে উদ্ধার করতে ঈদের ছুটি ও দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া উপেক্ষা করে বন্দরের কর্মকর্তা, জাহাজের মালিক প্রতিনিধি, স্থানীয় এজেন্ট, সেলভেজ সংস্থা, পিঅ্যান্ডআই, নৌ বাহিনী, কোস্টগার্ডসহ সংশ্লিষ্টদের নিয়ে চট্টগ্রাম বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম. শাহজাহান সমন্বয় সভা আহ্বান করেন। পরে জাহাজটিকে বার্থিং দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

চট্টগ্রাম বন্দর চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে উদ্ধার কাজের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন হারবার ও মেরিন সদস্য কমডোর মো. মোস্তাফিজুর রহমান। উদ্ধার কাজ তদারকি করেন ডেপুটি কনজারভেটিভ ক্যাপ্টেন ফরিদুল আলম, হারবার মাস্টার ক্যাপ্টেন জহিরুল ইসলাম।

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //