ICT Division

ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং: বরিশাল বিভাগে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ

ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির মধ্যে পড়েছে বরিশাল। নগরীর বিভিন্নস্থানে গাছ ভেঙে গেছে। রাস্তাঘাট ও বাড়িঘর পানিতে তলিয়ে আছে। ফলে নগরবাসীর দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে।

আজ মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) সকালে নগরীর বিভিন্ন স্থানে পানি জমে থাকতে দেখা গেছে। গাছ ভেঙে পড়েছে। অনেক বিদ্যালয়ের প্রাঙ্গণে জমে আছে হাঁটু সমান পানি। শহরের অভ্যন্তরীণ অধিকাংশ সড়ক এখনো পানিতে নিমজ্জিত। ঝড়ে ভেঙে পড়া গাছপালা অপসারণ করছে ফায়ার সার্ভিস।

এদিকে, বরিশাল জেলার বিভিন্ন আশ্রয়ণকেন্দ্র আশ্রয় নেয়া প্রায় ১৩ হাজার মানুষ ঘরে ফিরেছে মঙ্গলবার সকালে। তবে সরকারি ঘোষণার কারণে বন্ধ রয়েছে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।


আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, উপকূলে আঘাত হেনে ধীরে ধীরে শক্তি কমে ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং পরিণত হয়েছে সুস্পষ্ট লঘুচাপে। মধ্যরাতে ঘূর্ণিঝড়ের কেন্দ্র উপকূল অতিক্রম করেছে। এতে দেশের সমুন্দ্র বন্দরগুলোকে বিপদ সংকেত নামিয়ে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। তাছাড়া অভ্যন্তরীণ নৌ-রুটে নৌযান চলাচল শুরু হয়েছে সকাল থেকে।

অপরদিকে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপ সিত্রাংয়ের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত ও ভবঘুরে, আশ্রয় নেয়া ৩ শতাধিক মানুষের মাঝে সোমবার রাতে খাবার বিতরণ করেছেন বরিশালের জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দার। তবে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে অনেক এলাকা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড়ে বরিশাল বিভাগের ভোলায় চারজন এবং বরগুনায় একজন করে পাঁচজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এরা সবাই গাছ চাপায়, দেয়াল চাপা এবং নৌকা ডুবে মারা যান বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্র।


সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2022 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //