প্রয়োজনের অর্ধেক বাস নিয়ে চলছে চুয়েট

যাতায়াতের জন্য বাসের সংখ্যা কম থাকায় দীর্ঘদিন ধরে চরম পরিবহন ভোগান্তিতে চলাচল করছে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) শিক্ষার্থীরা। বাসের আসনের চেয়ে প্রায় দিগুণ শিক্ষার্থী নিয়েই চলাচল করছে বাসগুলো। এমনকি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাসের গেটে ঝুলে ঝুলে ক্যাম্পাসে ফিরছে অনেক শিক্ষার্থী।

সরেজমিনে দেখা যায়, বাসের জন্য দাঁড়িয়ে থেকে হুড়োহুড়ি করে বাসে উঠতে না পারায় ছোটাছুটি করে লোকাল বাস কিংবা সিএনজি যোগে ক্লাসে যাচ্ছে শিক্ষার্থীরা৷ ফলে সকালের ক্লাস-পরীক্ষায় সঠিক সময়ে উপস্থিত থাকতে পারছে না অনেকে৷ সকালে লোকাল বাস এবং সিএনজির সংখ্যা কম থাকায় দুর্ভোগে নতুন মাত্রা যোগ করেছে৷ 

দীর্ঘদিনেও বাসের সমস্যা সমাধান না হওয়ায় প্রতিনিয়ত ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গেছে শিক্ষার্থীদের। ফলে শিক্ষার স্বাভাবিক কার্যক্রম নষ্ট হচ্ছে বলেও মনে করছেন অনেকে। তবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বলছে, শিক্ষার্থীদের এই সমস্যা সমাধানের জন্য নতুন বাস কিনেছে তারা। তবে চালকের সংকটের কারণে এই সমস্যার সমাধান করা যাচ্ছে না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট ১৩টি বাসের মধ্যে ২টি শিক্ষক এবং ২টি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য দেওয়া হয়৷ তবে প্রায় ৪ হাজার শিক্ষার্থীর বিপরীতে শিক্ষার্থীদের মধ্যে চট্টগ্রাম শহর থেকে চলাচল করা প্রায় ৬০০-৭০০ শিক্ষার্থীদের জন্য বাস দেওয়া হয় কোনদিন ৫টি আবার কোনদিন ৬টি৷ ১৩টি বাসে মধ্যে গত নভেম্বরের শুরুতে তুরাগ নামে একটি নতুন বাস কেনা হলেও আড়াই মাসে এখনো বাসটি পরিবহনে যুক্ত করতে পারেনি চুয়েট প্রশাসন। বাকি ২ বা ৩টি বাসের সমস্যা সম্পর্কে জানতে চুয়েট যানবাহন পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে একাধিকবার মুঠোফোনে কল করেও তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি৷

বাসের ভোগান্তির কথা বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের তড়িৎ ও তাড়িতকৌশল বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আশিকুর রহমান বলেন, বাসসংকটের কারণে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি তীব্র আকার ধারণ করেছে। সিএনজি এবং লোকাল বাসে ক্যাম্পাসে সময়মত ক্যাম্পাসে পৌঁছাতে না পারায় ক্লাস-পরীক্ষায় সময়মত পৌঁছাতে পারি না৷ কখনো বাসে উঠতে পারলেও দাঁড়িয়ে এমনকি অনেক সময় ঝুঁকিপূর্ণভাবে দরজার সামনে ঝুলে যেতে হয়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ দপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, যানবাহন সমস্যা আমরা দ্রুত সমাধান করার চেষ্টা করছি৷ নতুন বাসে চালক এবং সহকারী নিয়োগ এখনো হয়নি৷ নিয়োগ হলেই বাসটি পরিবহনে যুক্ত করব৷

চট্টগ্রাম শহর থেকে চুয়েট ক্যাম্পাস প্রায় ৩০কিলোমিটার দূরে৷ সকাল ৭টা, দুপুর ১টা ৪৫ মিনিট এবং বিকেল ৪টা ১৫ মিনিট এবং রাত ৯টা মোট চার শিফটে ক্যাম্পাস এবং চট্টগ্রাম শহরের রুটে নিয়মিত চলাচল করে চুয়েট বাস৷

সাম্প্রতিক দেশকাল ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Ad

মন্তব্য করুন

Epaper

সাপ্তাহিক সাম্প্রতিক দেশকাল ই-পেপার পড়তে ক্লিক করুন

Logo

ঠিকানা: ১০/২২ ইকবাল রোড, ব্লক এ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭

© 2023 Shampratik Deshkal All Rights Reserved. Design & Developed By Root Soft Bangladesh

// //